প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া আইনে নেই: খন্দকার এনায়েত উল্লাহ

সুজিৎ নন্দী: [২] ঢাকা-চট্টগ্রাম মহানগরীসহ শহরতলীতে বাস-মিনিবাসের ভাড়া শিক্ষার্থীরা অর্ধেক দাবী করলেও আইনে নেই। তবে এটি প্রথা হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে চালু আছে। শিক্ষার্থীরা পরিচয়পত্র দেখালে অর্ধেক নিয়ে থাকে। এর প্রচলন দীর্ঘদিনের।

[৩] এ ব্যাপারে মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, আইন নেই। আর আমাদের পক্ষে সম্ভব না অর্ধেক ভাড়া নেয়া। এটি বিআরটিসির পক্ষে নেয়া সম্ভব। সরকার থেকে তারা ভর্তুকি পেয়ে থাকে। শিক্ষার্থীদের জন্য অর্ধেক ভাড়া নেয়া চালু করলে সাধারণ যাত্রীরা ‘ভুয়া পরিচয়পত্র’ তৈরি করে সুবিধা নেবে।

[৪] বিআরটিসির চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের বাস ভাড়ার জন্য কম নেয়ার কোন সুযোগ নেই। আমরা নেয়ও না। আমরা করপোরেশন, আমাদের আয়ে আমাদের চলতে হয়। তবে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাসহ একাধিক বিষয়ে ভাড়ার ক্ষেত্রে আমাদেও বিশেষ নির্দেশনা আছে।

[৫] বিআরটিএ’র চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, অর্ধেক ভাড়া নেবার ক্ষেত্রে আমাদের কোন নির্দেশনা নেই। আইনের কোন আওতায়ও এটি পরে না। আমরা ছাত্রজীবনে বাসে চলাচল করেছি কিন্তু অর্ধেক ভাড়া দেই নাই। শুনেছি, কিছু শিক্ষার্থী অর্ধেক ভাড়া দিয়ে থাকে। তবে বাসের ড্রাইভার ও হেলপাররা অর্ধেক ভাড়ার ব্যাপারে আমাদের জানিয়েছে। আমরা নিজেরাও আলোচনা করেছি।

[৬] একাধিক ছাত্র-ছাত্রী জানান, আমরা ও প্রতিবন্ধী যাত্রীদের হাফ ভাড়া নিশ্চিত করার পাশাপাশি ঝুঁকি নিয়ে দাঁড়িয়ে যাওয়া যাত্রীদের কাছ থেকেও অর্ধেক ভাড়া আমরা দিয়ে থাকি। ভাড়া বাড়ানো ফলে বাসমালিকরা নতুন করে শিক্ষার্ধীদের কাছ থেকে নেয়ার পায়তারা করছি।

[৭] একাধিক পরিবহনের চালক ও হেলপার জানান, গুলিস্তান থেকে মিরপুর-১, ২, ১০ এবং গাবতলী থেকে আজিমপুর রুটে মিরপুর বাংলা কলেজ, ঢাকা কলেজ, সিটি কলেজসহ এই রুটের কলেজগুলোর বেশির ভাগ ছাত্রই ভাড়া দেয় না। শুধু যে কলেজ টাইম তাই নয়, ছুটির দিনসহ সবদিন সব সময় ছাত্ররা ভাড়া দেয় না।

সর্বাধিক পঠিত