প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাণীশংকৈল ধর্মগড় সীমান্তে নিখোঁজ ছেলের জন্য মায়ের প্রতিক্ষা

আনোয়ার হোসেন, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধি: নিখোঁজ ছেলের এক নজর দেখার অপেক্ষায় রয়েছে মা রাশেদা বেগম। গত ১ নভেম্বর বাসার পাশে নাগর নদীতে স্থানীয় দুইজনের সাথে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হয় ছেলে ওবায়দুর রহমান(৩০)। গত এক সপ্তাহের বেশি হলো একবারো ছেলেকে দেখতে পাননি এই মা। বাসায় আঙ্গিনায় প্রতিটি সময় ছেলের অপেক্ষায় রয়েছেন মা রাশেদা। ঘটনাটি ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈল উপজেলার ১নং গেদুরা ইউনিয়নের মারাধার গ্রামের হাসান আলীর পরিবারের।

মঙ্গলবার (০৯ নভেম্বর) উপজেলার মারাধার গ্রামের হাসান আলীর বাসায় গেলে এমনি চিত্রটি চোখে পড়ে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গত ১নভেম্বর বিকেলে ধর্মগর সীমান্ত ফাঁড়ি এলাকায় নাগর নদীতে মাছ ধরতে যায় রানীশংকৈল উপজেলার ১নং গেদুরা ইউনিয়নের মারাধার গ্রামের হাসান আলীর ছেলে ওবায়দুর রহমান তার ভাগিনা সুমন ও বন্ধু উজির। মাছ ধরার এক পর্যায়ে হঠাৎ করেই ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) বাংলাদেশের ভিতরে প্রবেশ করে ওবায়দুর রহমানকে উদ্দেশ্য করে গুলি করতে শুরু করে। এসময় তিনজন পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলেও বিএসএফ’র হাতে আটক হয়ে যায় ওবায়দুর, পালিয়ে আসে তার বন্ধু ও ভাগিনা।

পরে ভাগিনা সুমন ও বন্ধু উজির বাসায় এসে বিষয়গুলো জানান ওবায়দুরের পরিবারকে। পরপরেই পরিবারের স্বজনেরা বিভিন্ন ভাবে ওবায়দুরের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও মেলেনি কোন সন্ধান। পরিবারের পক্ষ থেকে ধর্মগর সীমান্ত ফাঁড়িতে বিষয়টি অবগত করা হয়। কিন্তু আজও পর্যন্ত কোন সন্ধান মেলেনি ছেলে ওবায়দুরের।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত ওবায়দুরের সাথে থাকা তার বন্ধু উজির ও ভাগিনা সমুন জানান,মাছ ধরার সময় হঠাৎ করেই বিএসএফ’র লোকেরা বাংলাদেশের ভিতরে প্রবেশ করেই কোন কারন ছাড়াই ওবায়দুর সহ তাদের ধাওয়া দেয়। এক পর্যায়ে গুলি ছুড়ে। পরে ওবায়দুরকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর থেকে কোন সন্ধান নেই তার।

এদিকে বিজিবির পক্ষ থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হলেও নিখোঁজ ওবায়দুরের বিষয়ে কোনো কিছুই জানেন না বিএসএফ এমনটি জানিয়েছেন বিজিবি।

স্থানীয় বাসিন্দা রবিউল ইসলাম রুবেল সহ বেশ কয়েকজন বলেন, শুনেছি মাছ মারতে গিয়ে বিএসএফ ধরে নিয়ে গেছে। ধরে নিয়ে যাবার পর থেকেই তার কোন সন্ধান নেই। সে বেঁচে আছে না মৃত আমরা কেউ কিছু জানিনা। তার সাথে তার বন্ধু ও ভাগিনা ছিলো তারা পালিয়ে এসেছে। তারাই এসে আমাদের ঘটনা বলেছে। আজ দিয়ে ৯দিন হয়ে যাচ্ছে ওবায়দুরের কোন খবর নেই। আমরা এলাকাবাসী হিসাবে আমাদের এলাকার ছেলের সন্ধান চাই।

ওবায়দুরের মা রাশেদা বেগম কান্নজণিত কন্ঠে বলেন, আমার ছেলে মাছ মারতে গেছিলো। কিন্তু এরপর থেকে তার কোন খোজ নাই। কি করবো.? ৮দিনের বেশি সময় হয়ে যাচ্ছে আজও পর্যন্ত আমার ছেলের কোন খবর পাইনি। তার মুখ দেখিনাই। কি করবো কই যাবো ? আমার ছেলেরে আমার কাছে ফিরিয়ে দাও।

ওবায়দুরের বাবা হাসান আলী বলেন, আমার ছেলের সহ দুইজন নাগর নদীতে মাছ ধরতে গেছিলো সন্ধ্যার একটু পরেই। তারপর থেকে তার কোন খবর নেই। ছেলের সাথে যে দুইজন গেছিলো একজন তার ভাগিনা আরেকজন তার বন্ধু। তারা নাকি তার থেকে কিছু দূরে ছিলো। রাতের দিকে তারা আমাদের বলেন আমরা ছেলেকে নাকি বিএসএফ ধরে নিয়ে গেছে বাংলাদেশের ভিতরে আসে। আর তারা পালিয়ে গেছে। এরপর থেকে আমার ছেলের খবর নেয়া হলে তার কোন খবর পাওয়া যায়নি।

তিনি আরো বলেন,আমরা স্থানীয় ধর্মগর ফাঁড়ি ক্যাম্পে বিষয়টি অবগত করেছি। কিন্তু বিএসএফ নাকি বলেছে আমার ছেলেকে তারা ধরেনি। তাহলে আমরা ছেলে কই গেলো। আমি আমার ছেলের সন্ধান চাই। বিএসএফ মিথ্যা বলতে পারে।

ঠাকুরগাঁও ব্যাটালিয়ন (৫০ বিজিবি) অধিনায়ক লেঃ কর্নেল এস এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি শুনার পরেই আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সেই সাথে নিখোঁজ ওবায়দুরের বিষয়ে বিএসএফকে বলেছি। কিন্তু তারা এই বিষয়য়ে কিছু যানেননা বলে জানিয়েছেন। আমরা এরপরেও খবর নেবার চেষ্টা করছি আসলে সে গেলো কোথায়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত