প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাটগ্রামে বেড়াতে এসে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু

নিউজ ডেস্ক: লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় প্রবীর মণ্ডল (৪০) নামে এক ভারতীয় নাগরিক বেড়াতে এসে মারা গেছেন। সোমবার (৮ নভেম্বর) বিকেলে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) বেলা ১১টায় ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ লালমনিরহাট মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ হিমঘরে রাখা হবে। পাটগ্রাম থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার বরানগর এলাকার প্রবীর মণ্ডলের সঙ্গে ভারতীয় পাসপোর্ট রয়েছে। পাসপোর্টের ভিসার মেয়াদ প্রায় দুই বছর আগেই শেষ হয়ে গেছে। তিনি এতদিন ঢাকায় অবৈধভাবে অবস্থান করছিলেন।

গত রোববার (৭ নভেম্বর) মিরপুর থেকে প্রবীর মণ্ডল নৈশকোচে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দিকে আসেন। সোমবার (৮ নভেম্বর) সকালে তিনি সেখানে পৌঁছান। এরপর ফেসবুকে পরিচয় হওয়া হাতীবান্ধা উপজেলার নওদাবাস গ্রামের প্রিয়নাথ বর্মণের ছেলে দীপঙ্কর বর্মণ নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করেন প্রবীর।

দুপুরে উপজেলার রাবার ড্যাম এলাকায় একটি বাড়িতে খাওয়াদাওয়া শেষে বিশ্রাম নিতে থাকেন প্রবীর। এরপর বিকেল ৩টার দিকে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এসময় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসকরা প্রবীরকে মৃত ঘোষণা করেন।

জানতে চাইলে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, প্রবীর মণ্ডলকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ছাড়া মৃত্যুর কারণ বলা সম্ভব নয়।

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, ওই ব্যক্তি কীভাবে মারা গেছে তা ময়নাতদন্ত করলে জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রবীরের ছোট ভাই সবীর মণ্ডলের সঙ্গে যোগাযোগ করে মরদেহ নেওয়ার জন্য ভারতীয় দূতাবাসে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। – জাগো নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত