প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চলচ্চিত্রে গতির সঞ্চার হচ্ছে আগের মতোই

ইমরুল শাহেদ: চোখে পড়ার মতো কোনো তৎপরতা লক্ষ্য করা না গেলেও বেশ কিছু ছবির শুটিংয়ের কাজ চলছে। এফডিসি যখন জমজমাট থাকে তখন মনে হয় শুটিং হচ্ছে। কিন্তু এফডিসি ফাঁকা থাকলে মনে হয়, চলচ্চিত্রের বুঝি কোনো শুটিংই হচ্ছে না। আসল চিত্রটা একটু ভিন্ন। পরিচালক অরুণ চৌধুরী ‘জলে জ্বলে তারা’ নামে একটি ছবির শুটিং করছেন মুন্সিগঞ্জের প্রত্যন্ত অঞ্চলে। অপূর্ব রানা পরিচলিত ‘জলরঙ’ ছবিটির কাজ হয়েছে তেপান্তর ষ্টুডিওতে। পরিচালক জাহিদ হোসেন ‘সোনার চর’ ছবির কাজ করেছেন তেপান্তরের পর এফডিসিতে। এসএ হক অলিক ‘গলুই’ ছবির কাজ করছেন জামালপুর এলাকার যমুনা নদীর বিভিন্ন লোকেশনে।

পরিচালক গিয়াসউদ্দিন সেলিম ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কাজ করছেন ‘গুনিন’ ছবির। শাপলা মিডিয়ার দুটি ছবির কাজ হচ্ছে চাঁদপুরের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে। সেখানে রয়েছেন ভারতীয় তারকারাও। ছবি দুটি হলো ‘পিয়া রে’ ও ‘মানব দানব’। শাপলা মিডিয়ার প্রধান নির্বাহী অপূর্ব রায় জানিয়েছেন, এখন লোকেশনে রয়েছেন বনি সেনগুপ্ত ও নবাগত শালুক। এই ছবিটি পরিচালনা করছেন বজলুর রাশেদ চৌধুরী। গাজীপুরের পূবাইল এলাকায়ও দু’চারজন পরিচালক যাতায়াত করে কাজ করছেন। অর্থাৎ নির্মাতারা এখন এফডিসির ঘেরাটোপের চাইতে প্রকৃতিকে প্রাধান্য দিচ্ছেন বেশি। কক্সবাজার এবং টেকনাফও নির্মাতাদের কাছে আকর্ষণীয় লোকেশন।

সেটা নির্ভর করছে প্রযোজকের আর্থিক অবস্থার উপর। পরিচালক সোহানুর রহমান সোহানও প্রস্তুতি নিচ্ছেন ‘স্বপ্নের রাজকুমার’ নামে একটি ছবি নির্মাণের। ইতোমধ্যে ছবিটির মহরত অনুষ্ঠিত হয়েছে এফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাবে। সরকারি অনুদান ও শাপলা মিডিয়ার কারণে চলচ্চিত্রে গতি সঞ্চার হতে শুরু করেছে। এছাড়া ইন্টারন্যাশনাল একাডেমি অব ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া চলচ্চিত্রের উন্নয়নে উদ্যোগ নিয়েছে। এবছরের মে মাস থেকে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য একটি স্ক্রিপ্ট ল্যাবের আয়োজন করে তারা। ল্যাবে জমা পড়া ২০টি আইডিয়া থেকে ট্রিটমেন্টের যাত্রা শুরু হয়।

ল্যাবটির প্রশিক্ষক ছিলেন ইউরোপিয়ান ফিল্ম একাডেমির সদস্য, ইতালির প্রখ্যাত চিত্রনাট্যকার, শিক্ষক জিওভানি রোবিয়ান। প্রশিক্ষণ শেষে তিনি চূড়ান্ত চিত্রনাট্য রচনার জন্য ১৩টি ট্রিটমেন্টকে নির্বাচন করেন। অন্যদিকে অনুদান পাওয়া ছবির তালিকায় পেয়েছে অভিনেত্রী জয়া আহসানের ‘রইদ। এটি পরিচালনা করবেন মেসবাউর রহমান সুমন। এ ছাড়া সাধারণ ক্যাটাগরির সিনেমার মধ্যে জাহিদুর রহমান অঞ্জনের ‘চাঁদের অমাবস্যা’, উজ্জ্বল কুমার মণ্ডলের ‘মৃত্যুঞ্জয়ী’, অনুরুদ্ধ রাসেলের ‘জামদানি’, রকিবুল হাসান চৌধুরী পিকলুর ‘দাওয়াল’, অমিতাভ রেজার ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’, অরুণা বিশ্বাসের ‘অসম্ভব’, নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূলের ‘সাড়ে তিন হাত ভূমি’, ইকবাল হোসেন চৌধুরীর ‘বলি’, জাহাঙ্গীর হোসেন মিন্টুর ‘ক্ষমা নেই’ ও ইব্রাহিম খলিল মিশুর ‘দেয়ালের দেশ’ ছবির শুটিং শুরু হবে শিগগিরই।

 

সর্বাধিক পঠিত