প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অসুস্থ বাবুকে মাথায় জলপট্টি দিয়ে সুস্থ করে তুললেন মৌসুমী!

ইমরুল শাহেদ: কাঁথা গায়ে শুয়ে আছেন অসুস্থ ফজলুর রহমান বাবু। পাশে বসা মৌসুমী। তাকে দেখেই এ রিপোর্টার বললেন, ডাক্তার কি ডাকা হয়েছে, নাকি ওষুধ পথ্য লাগবে? মৌসুমী ঘাড় ঘুরিয়ে এ রিপোর্টারের দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসলেন। বাবু দ্রæত জবাব দিলেন, এমন একজন সুন্দরী নারী মাথায় জলপট্টি দিলে আর কি কোনো ডাক্তার বা ওষুধ লাগ? অসুস্থ মানুষতো এমনিতেই সুস্থ হয়ে উঠেন। বলেই বাবু ও মৌসুমী হেসে উঠলেন। ফজলুর রহমান বাবুর অসুস্থততা এবং মৌসুমীর সেবা নিয়ে এই দৃশ্যটি চিত্রায়িত হয়েছে মীর্জা সাখাওয়াৎ পরিচালিত এবং অনুদানের অর্থ সহযোগিতায় নির্মিত ‘ভাঙন’ ছবির জন্য। কাজের মধ্যে তারা এতোই ব্যস্ত ছিলেন যে, তারা যে কারো সঙ্গে কথা বলবেন সেই ফুসরৎ নেই।

এফডিসির করুই তলায় ছবিটির সেট পড়েছে। শুটিং করছেন উল্লিখিত যুগল। অনেকদিন পর এভাবে খোলামেলা স্থানে শুটিং হচ্ছে দেখে সেখানে জমায়েত হয়েছেন এফডিসির কলা-কুশলীরাসহ আরো কিছু লোক। টিভি চ্যানেলগুলোও সারা বিকেল ব্যস্ত ছিলো মৌসুমী ও ফজলুর রহমান বাবুকে নিয়ে। তারা প্রয়োজনীয় ফুটেজ নিয়ে চলে যাচ্ছেন। আগে যেখানে টিভি চ্যানেলগুলোকে নিমন্ত্রণ করেও পাওয়া যেত না, এখন কয়েকটি চ্যানেলের গাড়ি প্রায়ই এফডিসি চত্বরে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

পরিচালক মীর্জা সাখাওয়াৎ জানান, এফডিসিতে পাঁচদিন কাজ করবেন তিনি। এই সময় মৌসুমী সেটের যে ছোট কক্ষটিতে শুটিং করছিলেন, তার বাইরে ই্উনিটের কয়েকজন নিয়ে অপেক্ষা করছিলেন ‘সোনার চর’ ছবির পরিচালক জাহিদ হোসেন। মৌসুমী তার ছবিটিতেও প্রধান চরিত্রে অভিনয় করছেন। মৌসুমীর ব্যস্ততা দেখে কুশল বিনিময় করে কিছুক্ষণ পর তিনিও চলে যান। মৌসুমীকে নিয়ে সকলের ব্যস্ততা হলো তিনি আগামী ১৫ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্র চলে যাচ্ছেন এক মাসের জন্য। ‘ভাঙন’-এর শিডিউল শেষ করেই তিনি পূবাইলে ‘দেশান্তর’ ছবির কাজ শুরু করবেন।