প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সোমনাথ মূর্তি ভাঙার প্রশংসা, মাহমুদ গজনিকে ‘বিখ্যাত মুসলিম যোদ্ধা’ বললেন তালিবান নেতা

রাশিদ রিয়াজ : ভারতের মিডিয়া দি ওয়াল বলছে গুজরাতের সোমনাথ মন্দির ( somenath temple) গুঁড়িয়ে দেওয়া ভারত ইতিহাসের এক অন্ধকার পর্ব, যার প্রশংসায় মুখর হল তালিবান (taliban)। তত্কালীন আফগান শাসক সুলতান মাহমুদ গজনি (Sultan Mahmud Ghaznavi) কালিমালিপ্ত করেছিলেন সোমনাথ মন্দিরকে। সেই গজনির সৌধ দর্শন করে ‘বিখ্যাত মুসলিম যোদ্ধা’ সার্টিফিকেট দিয়ে তাঁর প্রশংসা করলেন তালিবান নেতা আনাস হক্কানি। ইনি কুখ্যাত হক্কানি ভাইদের (haqqani brothers) অন্যতম, যাঁরা আমেরিকার নিষিদ্ধ সন্ত্রাসবাদী তালিকায় আছেন। নয়া তালিবান জমানার অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী সিরাজুদ্দিন হক্কানির ভাই এই আনাস।

Today, we visited the shrine of Sultan Mahmud Ghaznavi, a renowned Muslim warrior & Mujahid of the 10th century. Ghaznavi (May the mercy of Allah be upon him) established a strong Muslim rule in the region from Ghazni & smashed the idol of Somnath. pic.twitter.com/Ja92gYjX5j

— Anas Haqqani(انس حقاني) (@AnasHaqqani313) October 5, 2021

গজনির সৌধ সফরের ছবি ট্যুইট করে আনাস লিখেছেন, আজ সুলতান মাহমুদ গজনভির সৌধ ঘুরে এলাম। দশম শতাব্দীর নামি মুসলিম যোদ্ধা তথা মুজাহিদ। গজনভি (আল্লাহ আশীর্বাদ করুন তাঁকে) গজনি থেকে এই তল্লাটে এক শক্তিশালী মুসলিম শাসন প্রতিষ্ঠা ও সোমনাথের মূর্তি ধ্বংস করেছিলেন।

ভারত মার্কিন ও পশ্চিমী বাহিনী আফগানিস্তান ছাড়া শুরু করতেই ক্রমশঃ দখল নিতে শুরু করে তালিবান। ভারত সহ একাধিক দেশ এখনও তালিবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি। তার মধ্যেই ভারতের বিরাট ঐতিহ্য সোমনাথের মূর্তি ভেঙে দেওয়ার প্রশংসা করল তালিবান।

সমসাময়িক সোমনাথ মন্দির পুনর্নির্মাণ শুরু হয় দেশের প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সর্দার বল্লভ ভাই পটেলের নির্দেশে। ১৯৫১ সালে তাঁর মৃত্যুর পর সেই কাজ শেষ হয়। বর্তমানে সেই মন্দিরের ট্রাস্টের চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ইতিহাস বলে,
৯৯৮ থেকে ১০৩০ পর্যন্ত গজনভি সাম্রাজ্যের প্রথম স্বাধীন শাসক মাহমুদ গজনভি ১৭বার সোমনাথ মন্দির আক্রমণ করে তছনচ করেন। মূলত তত্কালীন হিন্দু মন্দিরগুলিই তাঁর হামলার টার্গেট হয় কেননা সেগুলি ছিল অফুরন্ত ধনসম্পদ, হিন্দু ভাবাবেগের কেন্দ্র।

সর্বাধিক পঠিত