প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রংপুরে নারী সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা

রংপুর প্রতিনিধি: জেলার রিপোর্টার্স ক্লাবের পূর্ব ঘোষিত দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভা শেষে বহিস্কৃত সদস্যদের নেতৃত্বে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দ্বারা অতর্কিত হামলায় ক্লাবের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক সাংবাদিক আফরোজা সরকারসহ পাঁচ সাংবাদিক আহত হন।

উল্লেখ্য, রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী গত শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেল তিনটায় পূর্বঘোষিত সাধারণ সভা শেষে সদস্যদের খাবার সময়ে বহিষ্কৃত কয়েকজন সদস্য কিছু ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের সাথে নিয়ে এসে অতর্কিত হামলা চালায়।
এসময় তারা ক্লাবের সদস্যদেরকে এলোপাথাড়ি মারডাং করতে শুরু করে। এতে ক্লাবের ৫ জন সদস্য আহত হন। আহতদের মধ্যে ক্লাবের নবনির্বাচিত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জিটিভি রংপুর প্রতিনিধি আজম পারভেজ ও সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক দৈনিক আমাদের অর্থনীতির ও ইউমেনআই রংপুর প্রতিনিধি মানবাধিকার কর্মী আফরোজো সরকারকে গুরুতর আহত অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এসময় হামলায় নারী আফরোজা সরকার এর ডান হাত কাটা যায়, বাম হাতের তিনটি আঙুল ভেঙে যায়, তার কমরো প্লাস্টিকের চেয়ার ও লোহার চেয়ার দিয়ে পিটিয়েছে, এছাড়াও শরীরের বিভিন্ন যায়গায় ক্ষত কাটা ছেঁড়া রয়েছে। এতেও তারা ক্ষন্ত হয়নি তার পরনের সেলোয়ার-কামিজ টানা হাচরা করে ছেড়ে দেন, এসময় তার আর্তচিৎকারে বাঁচাতে জি টিভির সাংবাদিক আজম পারভেজসহ অন্যরা এগিয়ে আসে তাকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। বর্তমানে রংপুর মেডিকেল হাসপাতালে চারতলা ১৬ নম্ভার ওয়ার্ডে কেবিন চিকিৎসাধীন। এছাড়াও হামলাকারীরা সভাস্থলে বেশকিছু প্লাস্টিক চেয়ার, টেবিল, স্টান্ড ফ্যানসহ আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

ঘটনায় মঙ্গলবার বিকেলে গুরুতর অসুস্থ্য সাংবাদিক আফরোজা সরকার বাদি হয়ে তাকে শ্লীলতাহানী ও হত্যার চেষ্টা ঘটনায় রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বুধবার রাতে মামলাটি রেকর্ড করা হয়েছে। তবে মামলার আসামি এখনো গ্রেপ্তার করা হয়নি।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ তারিখে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারন সভার কার্যক্রম শেষের দিকে বিকাল আনুৃমানিক ৪.২০ মিনিটে ক্লাবের বহিস্কৃত সদস্য আসামি সরকার মাজহারুল মান্নান, আরাফাত হোসেন বাধন, নজরুল ইসলাম রাজু, আব্দুল আজিজ চৌধুরী সাঈদসহ অজ্ঞাতনামা ১৫/২০ জন তাকে সভাস্থলের ভিতর প্রবেশ করে অর্তকিত হামলা চালান। আসামীরা উত্তিজিত হয়ে সভাস্থলের অতিথি ও সদস্যদের বসার স্থানের চেয়ার টেবিল ভাংচুর ও সদস্যদেরকে মারডাং করছেন। পরে আসামীরা সভাস্থল ত্যাগ করলে ক্লাবের অন্যান্য সদস্য ও স্বাক্ষীরা তাকে দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান এবং এখনও চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ক্লাবের সভাপতি হালিম আনছারী জানান, আসামীদের এমন প্রকাশ্য যৌন হয়রানীর শিকার হয়ে তিনি মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছেন। তিনি আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ বায়েজিদ আহম্মেদ জানান, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি, এছাড়াও নারী সাংবাদিক আফরোজা সরকারকে শ্লীলতারহানির ঘটনায় বাংলাদেশ, আর্টিকেল নাইনটিন বাংলাদেশ ও দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক প্রধান, বাংলাদেশ জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাব, বিকশিত নারী নেটওয়ার্ক নীলফামারী জেলা কমিটি এবং কন্যাশিশু এ্যাডভোকেসী ফোরাম নীলফামারী জেলা কমিটি ও সাহিত্যাঙ্গন নারী সাংবাদিক সংঘ নাসাস বাংলাদেশ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা এনএনসি, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরার সহ দেশী ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংগঠন তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

মামলার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানার অফিসার্স ইনচার্জ আব্দুর রশিদ জানান, বুধবার রাতে মামলাটি রেকর্ড করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নেওয়া হয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত