প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] স্কুল খুললেও কমেছে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি

মিনহাজুল আবেদীন: [২] গত ১২ সেপ্টেম্বর স্কুল খোলার পর দেশের মাধ্যমিক স্কুলগুলোর ক্লাসরুমে শিক্ষার্থীদের যে উপস্থিতি ছিলো, ধীরে ধীরে তা কমতে শুরু করেছে। দ্য ডেইলি স্টার

[৩] মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) তথ্য অনুযায়ী, গত দুই সপ্তাহ ধরে মাধ্যমিক স্কুলে অনুপস্থিতি বাড়ছে। ১২ সেপ্টেম্বর ১৪ হাজার ৮১৭টি স্কুলের ৪৩ দশমিক ৩১ লাখ শিক্ষার্থীর ৬৭ শতাংশ ক্লাসে অংশ নেয়। গত ১৮ সেপ্টেম্বর ক্লাসে উপস্থিত ছিল ১৬ হাজার ৬৯০টি স্কুলের ৪৮ দশমিক ১ লাখ শিক্ষার্থীর ৫৮ শতাংশ। এরপর গত শনিবার ১৫ হাজার ৮৬০টি স্কুলের ৪২ দশমিক ৩৩ শতাংশ শিক্ষার্থীর ৫৬ শতাংশ ক্লাসে উপস্থিত হয়।

[৪] উপাত্ত বলছে, দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ১৫ শতাংশ, দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ১১ শতাংশ এবং পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ২ শতাংশ কমে গেছে।

[৫] মাউশির পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশন) অধ্যাপক আমির হোসেন জানান, করোনা মহামারি শুরুর আগে মাধ্যমিক স্কুলগুলোতে ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ উপস্থিতি ছিলো। বর্তমানে গ্রাম ও শহরের দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থী এবং সুবিধাবঞ্চিত গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনুপস্থিতি বেশি চোখে পড়ছে।

[৬] তিনি মনে করছেন, করোনা সংক্রমণ রোধে দেওয়া বিধিনিষেধের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত অনেক পরিবারই অর্থ উপার্জনের জন্য শিক্ষার্থীদের কাজে পাঠাচ্ছেন। তিনি বলেন, ‘৯৩ শতাংশ এসএসসি পরীক্ষার্থী স্কুলে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিচ্ছে।’

[৭] মাউশির হিসাব অনুযায়ী, ১২ সেপ্টেম্বর পঞ্চম শ্রেণিতে উপস্থিতির হার ৭১ শতাংশ থাকলেও, শনিবার এটি ৬৯ শতাংশে নেমে এসেছে। দশম শ্রেণি ও এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্লাসে ১২ সেপ্টেম্বর যথাক্রমে ৭৬ শতাংশ ও ৬৯ শতাংশ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলো। কিন্তু দুই সপ্তাহ পর এই উপস্থিতি যথাক্রমে ৬১ শতাংশ ও ৬২ শতাংশে নেমে আসে। এছাড়া একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে ১২ সেপ্টেম্বর যথাক্রমে ৫৯ শতাংশ ও ৫৩ শতাংশ উপস্থিতি থাকলেও, শনিবার তা যথাক্রমে ৫০ শতাংশ ও ৪২ শতাংশে নেমে আসে।

[৮] গণসাক্ষরতা অভিযানের উপ-পরিচালক কে এম এনামুল হক বলেন, অনেক শিক্ষার্থী কাজ করছে বলে তারা ক্লাসে যাচ্ছে না। আবার দীর্ঘ বন্ধের কারণে অনেকের পক্ষে পড়া বোঝা কঠিন হয়ে পড়ছে। তারা ক্লাসে যাওয়ার আগ্রহ হারাচ্ছে।

[৯] তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফিরিয়ে আনার জন্য শিক্ষক, স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্য ও অভিভাবকদের একযোগে কাজ করতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত