প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বেঙ্গালুরুর অধিনায়কত্ব ছাড়তে পারতেন বিরাট কোহলি, মন্তব্য ধারাভাষ্যকার হার্শার

স্পোর্টস ডেস্ক : [২] টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর ক্রিকেটের এই সংক্ষিপ্ত সংস্করণে অধিনায়কের দায়িত্বে থাকছেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন বিরাট কোহলি। মূলত নিজের ওপর ওয়ার্কলোড কমিয়ে ব্যাটে নিজের ছন্দ ফিরে পেতে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তবে কোহলির এমন সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত হতে পারছেন না হার্শা ভোগলে।

[৩] এক সময় হরহামেশাই সেঞ্চুরি তুলে নিলেও বিগত দুই বছরে নিজেকে হারিয়ে খুঁজছেন কোহলি। ২০১৯ সালে টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষ সেঞ্চুরি পাওয়ার পর পঞ্চাশোর্ধ ইনিংস পেরিয়ে গেলেও তিন অঙ্ক আর ছুঁতে পারেননি। তাই তিন সংস্করণের অধিনায়কত্ব সামলানোর বাড়তি চাপ কমাতেই টি- টোয়েন্টির নেতৃত্ব ছাড়ছেন তিনি।

[৪] লম্বা সময় ধরে ইন্ডিয়ানের প্রিমিয়ার লিগের দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর অধিনায়কের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন কোহলি। তবে জনপ্রিয় এই ঘরোয়া টুর্নামেন্টে বেঙ্গালুরুকে শিরোপা জেতাতে পারেননি তিনি। জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হার্শার মতে, জাতীয় দলের পরিবর্তে বেঙ্গালুরুর অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ানো উচিত ছিল কোহলির।

[৫] এ প্রসঙ্গে হার্শা বলেন, বিরাটের তীব্রতা ছিল উন্মাদ। আমি ভেবেছিলাম, সে আরসিবি’র (বেঙ্গালুরু) অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেবে যা ওকে দুই মাসের ব্রিশাম দেবে! আশা করব, এটি তার মনকে প্রয়োজনীয় বিশ্রাম দিতে পারে। কে জানে, হয়তো ওকে শীর্ষ টি-টোয়েন্টি ব্যাটসম্যান হিসেবে আরেকবার ফিরে পাওয়া যেতে পারে।

[৬] এর আগে টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব ছাড়ার বিষয়ে কোহলি বলেছিলেন, ‘ওয়ার্কলোড (কার্যক্ষমতা) বুঝতে পারাটা গুরুত্বপূর্ণ। শেষ ৮-৯ বছর আমি সব সংস্করণে খেলেছি, ৫-৬ বছর ধরে অধিনায়কত্বও করছি। ওয়ার্কলোড অনেক বেশি ছিল। আমি মনে করি, ভারতের জাতীয় দলকে ওয়ানডে এবং টেস্টে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য আমার ওয়ার্কলোড নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি। টি-টোয়েন্টিতে অধিনায়ক হিসেবে আমি নিজের সবটুকুই দিয়েছি এবং আগামীতেও ব্যাটসম্যান হিসেবে সবকিছু দিতে থাকব। – ক্রিকইনফো

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত