প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনায় চরম উপেক্ষিত তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ

শিমুল মাহমুদ: [২] দেশে করোনা টিকা কার্যক্রমের ৭ মাস অতিবাহিত হলেও টিকাদান কর্মসূচিতে নেই তৃতীয় লিঙ্গের (ট্রান্সজেন্ডার) মানুষেরা। কেবল টিকা নয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা আক্রান্তদের তালিকায়ও নেই তৃতীয় লিঙ্গের তথ্য। শুধু নারী ও পুরুষ বেধেঁ শনাক্ত ও মৃত্যুর তথ্য দেয় হয় সেখানে।

[৩] জনস্বাস্থ্যবিদরা বলছেন, এ জনগোষ্ঠির কর্মসংস্থান বলতে গনপরিবহণ, রাস্তাঘাট, বাজার ও বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে নাচ-গান করা। প্রতিনিয়ত নানা শ্রেনিপেশার মানুষের কাছে যাচ্ছে। ফলে এরা ভ্যাকসিনেশনের আওতায় না আসলে অন্যান্যদেরও স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়বে।

[৪] জন্মনিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয়পত্র এখনো সহজতর হয়নি তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য। সরকারিভাবে স্বীকৃতি পেলেও তার বাস্তবায়ন নেই বলে অভিযোগ সম্পর্কের নয়া সেতু এবং সচেতন সমাজসেবা হিজড়া সংঘ নামে দুটি সংগঠনের নেতাদের।

[৫] সম্পর্কের নয়া সেতু সংগঠনের প্রেসিডেন্ট জয়া সিকদার বলেন, টিকার বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে কেউ আমাদের কমিটির সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। পরিবার বা সমাজের মূল ধারার সঙ্গে যোগাযোগ না থাকায় অনেকেরই আবার নেই জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধন সনদ! কয়েকজন এবার ভোটার হলেও জাতীয় পরিচয়পত্র পেয়েছেন পুরুষ কিংবা নারী পরিচয়ে। ফলে তারাও নিবন্ধন করেননি টিকা নিতে। আবার নিবন্ধনের জন্য সুরক্ষা ওয়েবসাইটেও রাখা হয়নি তৃতীয় লিঙ্গ পরিচয়ে নিবন্ধনের সুযোগ।

[৬] সচেতন সমাজসেবা হিজড়া সংঘ সভানেত্রী ইভান আহমেদ কথা বলেন, সরকারি কাজ খুব টিলেটালা। চলছে চলবে এরকম। বলা হয়, আমরা এই করবো, সেই করবো কিন্তু বাস্তবে এই স¤প্রদায়ের মূল স্রোতে নিয়ে যেতে পেরেছে কি? দুঃখজনক হলেও সত্যি, গত ৫০ বছরেও রাষ্ট্র এবং রাষ্ট্র পরিচালনায় নিয়োজিত বিভিন্ন সরকার ঠিকভাবে আমাদের অধিকার নিশ্চিত করতে পারেনি।

[৭] এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম জানিয়েছেন, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের টিকাদানের ব্যাপারে একটি কর্মপরিকল্পনা তৈরি করা হয়েছে। শিগগিরই তাদের সকলে টিকার আওতায় আসবে। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত