প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] টোকিও অলিম্পিকের স্মরণীয় মুহুর্ত

লিহান লিমা: [২] দশকের শেষ অলিম্পিক আয়োজন মহামারীর কারণে এক বছর পিছিয়ে গেলেও খেলোয়াড়দের উদ্দীপনায় এতটুকু ঘাটতি দেখা যায় নি। রেকর্ড ভাঙ্গা অলিম্পিকে বিশ্ব দেখেছে র্কীতি, সম্ভাবনা ও ঐক্যের অনন্য সব মূহুর্ত। এর মধ্যে কিছু ঘটনা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছিলো। ফ্রান্স২৪

[৩] গত ২৩ জুলাই শুক্রবার প্রায় শূন্য স্টেডিয়ামে উদ্বোধন হয় অলিম্পিকের। মাস্ক পরে, সামাজিক দূরুত্ব বজায় রেখে অ্যাথলেটদের স্বাগত জানান জাপানের সম্রাট নারুহিতো ও আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির সভাপতি থমান বেক। উদ্বোধনী বক্তৃতায় বেক বলেন, ‘আজকের মূহুর্তটি আশার। হ্যাঁ এটি আমরা যা ভেবেছিলাম তার থেকে অনেক ভিন্ন কিন্তু অবশেষ আমরা একত্র হতে
পেরেছি।’ অলিম্পিকের শিখা প্রজ্বলন করে জাপানের টেনিস তারকা নাওমি ওসাকা বলেন, ‘এটি আমার খেলোয়াড় জীবনে পাওয়া সবচেয়ে বড় অর্জন।’

[৪] ২৪ বছর বয়সী মার্কিন তারকা জিমন্যাস্ট সিমোন বেলিস গত অর্ধ শতাব্দীর ইতিহাসে প্রথম নারী হিসেবে রেকর্ড গড়ার স্বপ্ন নিয়ে টোকিওতে এসেছিলেন। প্রত্যাশা ছিলো তিনি ১৯৬৪ সালে সোভিয়েতের জিমন্যাস্ট লারিসা ল্যাটিনিনার ৯টি স্বর্ণপদক জয়ের রেকর্ড ছোঁবেন তিনি। কিন্তু তা হয় নি। ২৭ জুলাই নারী দলের ফাইনাল থেকে বাদ পড়ে। পাঁচটি স্বতন্ত্র ইভেন্টের মধ্যে চারটিই হারান। তবে ব্যালেন্স বিমে ব্রোঞ্জ এবং দলীয় ইভেন্টে রুপা জয় করে টোকিওতে দুইটি পদক ধরে রাখেন তিনি।

[৫] মার্কিন সাঁতার দলের কাইলেব ড্রেসেল কিংবদন্তী মাইকেল ফেলেপসের উপযুক্ত উত্তরাধীকারী হিসেবে নিজকে প্রমাণ করেণ। মাত্র ২৫ বছর বয়সে ১৩টি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নজয়ী ড্রেসেল অলিম্পিকে ৫টি স্বর্ণপদক জয় করেন তিনি। এছাড়া ৫০ টিমার ফ্রিস্টঠনলে ২১.০৭ সেকেন্ড নিয়েং ব্রিশ্বের দ্রুততম সাঁতারুর মুকুট অর্জন করেন।

[৬] অলিম্পিকের ইতিহাসে প্রথম কোনো নারী সাঁতারু হিসেবে টোকিও থেকে চারটি সোনা ও ৩টি ব্রোঞ্জসহ মোট ৭টি পদক জেতেন অস্ট্রেলিয়ার সাঁতারু এমা ম্যাককিওন।

[৭] কোচের সমালোচনা করায় বেলারুশের স্প্রিন্টার ক্রিস্টিসিনা সিমানোউস্কায়াকে জোরপূর্বক অলিম্পিক থেকে দেশে ফিরতে বাধ্য করায় কূটনৈতিক উত্তেজনা শুরু হয়। ক্রিস্টিসিনা কর্তৃপক্ষের নির্দেশ প্রত্যাখ্যান করার পর পোল্যান্ড তাকে মানবিক ভিসা প্রদান করে। এই কাণ্ডে বেলারুশের কুই কোচের অ্যাক্রিডিশন বাতিল করে অলিম্পিক কমিটি।

[৮] নারীদের উদ্বোধনী স্কেটবোর্ডিংয়ে সোনা জিতে ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় গৌরব অর্জন করেন জাপানের ১৩ বছর বয়সী মোমিজি নিশিয়া।

[৯] কাতারের মুতাজ ঈসা বারশিম ও ইতালির জিয়ানমারকো তাম্বেরি পুরুষদের উচ্চলাফে যৌথভাবে সোনা জেতেন। দুজনই ২.৩৭ মিটার সম্পন্ন করলেও ২.৩৯ মিটারের রেকর্ড অর্জনের তিনটি চেষ্টা মিস করেন। রেফারি তখনও খেলা চালিয়ে যেতে চাইলেও এই দু’জন মেডেল ভাগ করে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। ১১৩ বছরের ইতিহাসে অলিম্পিকে সোনা জয়ের গৌরব ভাগাভাগি করেন তারা।

[১০] অলিম্পিকের অন্যতম আর্কষণীয় ইভেন্ট ১০০ মিটার দৌড়ে দ্রুততম মানব হিসেবে উসাইন বোল্টের স্থান নেন ইতালির অ্যাথলেট লেমন্ত মার্সেল জ্যাকবস। ১০ সেকেন্ডের প্রতিযোগীতায় সময় নিয়েেেছন ৯.৮০ সেকেন্ডস। যদিও তা বোল্টের অর্জনের ধারে-কাছেও নেই। বোল্টের রয়েছে ৯.৫৮ সেকেন্ডের বিশ্বরেকর্ড।

[১১] নারী দলের ৪’শ মিটার দৌড়ে ব্রোঞ্জ জেতা মার্কিন অ্যাথলেট অ্যালিসন ফেলিক্স অলিম্পিকের ট্র্যাক এন্ড ফিল্ডে ১০টি পদক অর্জন করেন। এর মধ্যে রয়েছে ৬টি সোনা, ৩টি রুপা ও ১টি ব্রোঞ্জ।

[১২] অলিম্পিকে অন্য সময়ের তুলনায় এবার প্রকাশ্যে আসছে বৈচিত্র। এলিজিবিটিকিউ সম্প্রদায়ের হিসেবে দুইটি ব্রোঞ্জ জয়ের পর প্রথম অলিম্পিক স্বর্ণপদক জিতে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন ডুবুরি টম ডেলি। বলেন, ‘আমি একজন সমকামী এবং অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন।’

সর্বাধিক পঠিত