প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রাজধানীতে ২৪ ঘণ্টায় শতাধিক ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

আব্দুল্লাহ মামুন: [২] গত ২৪ ঘণ্টায় এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা একশ’ ছাড়িয়েছে। এ সময়ে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে সর্বমোট ১০৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হন। এটি চলতি বছরে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক রোগী হাসপাতালে ভর্তির রেকর্ড।

[৩] এ নিয়ে বর্তমানে সরকারি, বেসরকারি ও স্বায়ত্ত্বশাসিত হাসপাতালে মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৪২২জন। তাদের মধ্যে রাজধানীতে ৩১৯ জন ও ঢাকার বাইরের হাসপাতালে তিনজন রোগী ভর্তি রয়েছেন।

[৪] শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের স্বাস্থ্য তথ্য ইউনিটের (এমআইএস) সহকারী পরিচালক ও হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন অ্যান্ড কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডা. কামরুল কিবরিয়া স্বাক্ষরিত ডেঙ্গু সংক্রান্ত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে। জাগোনিউজ।

[৫] গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হওয়া ১০৪ জন রোগীর মধ্যে সরকারি ও স্বায়ত্ত্বশাসিত হাসপাতালে ৩১ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে ৭৩ জন ভর্তি রয়েছেন। সরকারি ও স্বায়ত্ত্বশাসিত হাসপাতালগুলোর মধ্যে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতালে ২১ জন, ঢাকা শিশু হাসপাতালের ৫ জন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ৯ জন রয়েছেন।

[৬] এছাড়া রাজধানীর বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোতে সর্বমোট ভর্তি ৭৩ জনের মধ্যে হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ৭ জন, ইবনে সিনা হাসপাতাল ধানমন্ডিতে ১ জন, স্কয়ার হাসপাতাল ৮ জন, সেন্ট্রাল হাসপাতাল ধানমন্ডিতে ৯ জন, গ্রীন লাইফ হাসপাতালে ৩ জন ,ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতাল কাকরাইলে ৩ জন, খিদমাহ হাসপাতাল খিলগাঁওয়ে ৬ জন, সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১ জন, এভারকেয়ার হাসপাতালে ৬ জন, আদ-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৭ জন, ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ১ জন, বিআরবি হসপিটালস লিমিটেড-এ ১ জন,বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালের ২ জন, উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২ জন, সালাউদ্দিন হাসপাতালে ২ জন,পপুলার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৩ জন এবং উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ১ জন ভর্তি হন।

[৭] পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ শনিবার ২৪ জুলাই পর্য়ন্ত রাজধানীসহ সারাদেশে সর্বমোট ১ হাজার ৫৭৪ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ হাজার ১৪৯ জন রোগী। চলতি বছর জানুয়ারিতে ৩২ জন, ফেব্রুয়ারিতে ৯ জন, মার্চে ১৩ জন, এপ্রিলে তিনজন, মে’তে ৪৩ জন, জুনে ২৭২ জন এবং ২৪ জুলাই পর্যন্ত ১ হাজার ২০২ জন রোগী ভর্তি হন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত