প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কাপুরুষতা, সহিংসতা ও হত্যা গডসের হিন্দুত্ববাদী ভাবনার অভিন্ন অঙ্গ: ওয়াইসি

রাশিদুল ইসলাম : [২] ভারতের মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বলেছেন, ‘কাপুরুষতা, সহিংসতা ও হত্যা গডসের হিন্দুত্ববাদী ভাবনার এক অভিন্ন অঙ্গ। মুসলিমদের গণপিটুনিও দেওয়াও সেই ভাবনারই ফল।’ পারসটুডে

[৩] আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতের সাম্প্রতিক এক মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা জবাবে ওয়াইসি সোমবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার বার্তায় ওই মন্তব্য করেন। ভারতের জাতির জনক গান্ধীজিকে হত্যা করেছিল উগ্র হিন্দুত্ববাদী মতাদর্শের নাথুরাম গডসে। রোববার আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত এক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘ যে বা যারা গো-রক্ষার দোহাই দিয়ে গণরোষ তৈরি করে কাউকে কাউকে আক্রমণ করছে, তারা হিন্দুত্বের বিরোধী।’

[৪] মোহন ভাগবতের মতে, ‘গরু একটি পবিত্র প্রাণী। কিন্তু গো-রক্ষার কারণে যারা গণরোষ তৈরি করে অন্যকে আক্রমণ করছে, তারা ‘হিন্দুত্ব’থেকে বিচ্যুত হচ্ছেন।’

[৫] এ প্রসঙ্গে ‘মিম’প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বলেন, ‘আলিমুদ্দিনের হত্যাকারীকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ফুলের মালা পরিয়ে দেন, আখলাখের হত্যাকারীর মৃতদেহের উপরে দেশের জাতীয় পতাকা দিয়ে দেওয়া হয়, আসিফের হত্যাকারীর সমর্থনে মহাপঞ্চায়েত ডাকা হয়, যেখানে বিজেপি’র মুখপাত্র জানতে চান, ‘আমরা কি হত্যাও করতে পারি না?’ ওয়াইসি বলেন, ‘আরএসএসের ভাগবত বলেছেন, ‘গণপিটুনি প্রদানকারীরা হিন্দুত্ব বিরোধী। এরপরেই ওয়াইসি গরু রক্ষাকে কেন্দ্র করে উগ্র হিন্দুত্ববাদী তথাকথিত গো-রক্ষকদের গণপিটুনিতে বিভিন্ন সময়ে মুসলিমদের হত্যার ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, ‘এই অপরাধীরা গরু ও মহিষের মধ্যে পার্থক্য জানে না, কিন্তু জুনাইদ, আখলাক, পহেলু, রাকবর, আলিমুদ্দিনের নামই হত্যা করার জন্য যথেষ্ট ছিল। এই বিদ্বেষ হিন্দুত্ববাদের উপহার। এই অপরাধীদের হিন্দুত্ববাদী সরকারের শক্তিশালী আশ্রয় রয়েছে।’

[৬] এ প্রসঙ্গে ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা ও দলটির সাধারণ সম্পাদক দিগ্বিজয় সিং আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘মোহন ভাগবতজী আপনি আপনার শিষ্য, প্রচারক, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ/বজরঙ্গ দলের কর্মীদেরও এই ধারণা দেবেন? আপনি কী এই শিক্ষা মোদী-শাহ’জী এবং বিজেপির মুখ্যমন্ত্রীকেও দেবেন? আপনি যদি আপনার ব্যক্ত করা মতামতের সাথে সত্যবাদী হন, তবে বিজেপিতে সেই সমস্ত নেতাদের অবিলম্বে তাদের পদ থেকে অপসারণ করার জন্য নির্দেশ দিন যারা ‘নিরপরাধ মুসলিমদের’ উপরে অত্যাচার চালিয়েছে।

[৭] মধ্য প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিং আরো বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদি এবং যোগী আদিত্যনাথ দিয়ে শুরু করুন। আমি জানি আপনি তা করবেন না কারণ আপনার কথা এবং কাজের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। আপনি ঠিকই বলেছেন যে আমরা প্রথমত ভারতীয়। কিন্তু হুজুর প্রথমে আপনার শিষ্যদের প্রথমে তা বোঝান। তারা আমাকে বহুবার পাকিস্তানে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে!’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত