প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মঈনুল আহসান সাবের: ‘লেখকদের ‘কবি’ বলে’!

মঈনুল আহসান সাবের: নীলক্ষেতের গাঁজার ডেরায় রেইড হলো। এ অবশ্য আজকের কথা না। বছর চল্লিশেক হয়েছে। পুলিশ সবাইকে লাইনে দাঁড় করিয়ে পরিচয় জানতে চাইল। কেউ কাঠমিস্ত্রী, কেউ বাদাম বিক্রি করে, কেউ সরকারি চাকুরে, অধিকাংশ হলো কবি। কবিদের সঙ্গে তো আবার পুলিশের রসিকতার সম্পর্ক, কী রে, না খাইলে আসে না, না? একজন তার পরিচয় দিল, সেও লেখক, কথাসাহিত্যিক। পুলিশের ভুরু কুঁচকে গেলো, এইটা কী জিনিস!
কথাসাহিত্যিক গম্ভীর গলায় বললো, কথাসাহিত্যিক। লিখি।
: এইটা কী কস! লেখে তো কবিরা। আমরা তাদের চিনি।
: আমিও লিখি। লেখক।
: এই দাবি করলে হবে না। লেখকদের কবি বলে। পুলিশের এক অধস্তন বলল, স্যার, এরে তো সন্দেহ হয়। পলাতক আসামী হইতে পারে।
: এইসব কী বলেন, আমি লেখক প্রমাণ আছে।
:কী প্রমাণ?
কথাসাহিত্যিক তার ঝোলা থেকে কয়েকটি লেখা বের করে দিল। পুলিশ কর্মকর্তা চোখ বুলিয়ে বিরক্তমুখে বলল, এগুলা কবিতা! আমি কবিতা বুঝি না!
: আমি তো বলেছি আমি কথাসাহিত্যিক।
: এইসব লেখস? কবিতা লেখস না?
: না।
: তাইলে তুই কীসের লেখক! চল।
: কই যাব?
: থানায়।
: শুধু আমাকে নিচ্ছেন যে!
: তারা যে লেখক আমরা জানি। কবি-লেখক খায়, এইটাও জানি। এদের একটা কইরা বাড়ি দিয়া ছাইড়া দিব।
: আমাকে দুইটা বাড়ি দিয়া ছেড়ে দিন।
: না। দাবি করছিস লেখক। এখন থানায় বইসা সারারাত কবিতা লিখবি। যখন বুঝব হইছে, তখন ছাড়ব।
কথাসাহিত্যিক ভোররাতে ছাড়া পেয়েছিল। লেখক : কথাসাহিত্যিক

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত