প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ডেমরা-যাত্রাবাড়ী ও ডেমরা-রামপুরা সড়কে চরম ভোগান্তিতে মার্কেট ব্যবসায়ী ও যাত্রী

ডেমরা প্রতিনিধি : [২] রাজধানীর ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কের ছয় লেন উন্নয়ন প্রকল্পের ধীরগতির উন্নয়ন কাজে মানুষের নাভিশ্বাস উঠছে। আর প্রকল্পের অংশ হিসাবে ডেমরা-রামপুরা সড়কের স্টাফ কোয়ার্টার এলাকার কিছু অংশেও খোঁড়াখুঁড়ি চলছে।

[৩] এ কারণে সুষ্ঠু ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় বাধার সৃষ্টি হওয়ায় সড়ক দুটিতে যানজটসহ নানা ভোগান্তিতে পড়ছেন পথচারীরা। এ নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন স্টাফ কোয়ার্টার এলাকার মার্কেট, শপিং মল, বিপণিবিতানকেন্দ্র, দোকান ব্যবসায়ী ও যাত্রীরা।

[৪] সরেজমিন দেখা গেছে, ডেমরার স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় ডেমরা-রামপুরা সড়কের কিছু অংশ প্রশস্ত করা হচ্ছে ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ যা ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের অংশ বিশেষ। এতে ওই সড়কের দু’পাশের অবৈধ দখল ও স্থাপনা উচ্ছেদসহ ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে গত চার মাস ধরে। তাছাড়া এ সড়কের পশ্চিম পাশে বিভিন্ন যাত্রীবাহী বাসের স্টপেজ হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে।

[৫] আর সড়কটির পশ্চিম আংশে ড্রেনেজ ব্যবস্থা করতে গিয়ে ঢাকা সড়ক বিভাগ অনেক আগেই সড়ক কেটে রেখেছে, যেখানে বৃষ্টি ও মার্কেটের ড্রেনের পানি জমে থাকে। তাছাড়া খানাখন্দ ও গর্তে ভরা এ সড়কটিতে অল্প বৃষ্টিতে কর্দমাক্ত হয়ে বৃষ্টির পানি জমে থাকে। এতেও সড়কে যানজট ও সড়ক দুর্ঘটনা সৃষ্টিসহ নানা দুর্ঘটনার শিকার হন মানুষ।

[৬] আর শুষ্ক আবহাওয়ায় এ সড়কে চলাচলকারীদের নিত্যসঙ্গী ধুলাবালি। এদিকে ৩৩২ কোটি টাকা বরাদ্দের ১৮ মাস মেয়াদি ৫.৫ কিলোমিটার ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কের উন্নয়ন কাজ শুরু হয়েছে গত সাড়ে নয় মাস আগে। কিন্তু ধীরগতির উন্নয়ন কাজে এ সড়কে বিশৃঙ্খলা শুরু হয়েছে অনেক আগেই। তাছাড়া নতুন করে হাজী হোসেন প্লাজা মার্কেটের সামনে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য বড় গর্ত করা হয়েছে বলে ভোগান্তি বেড়েছে কয়েকগুণ। পাশাপাশি অন্যান্য মার্কেটগুলোর পাশ দিয়ে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করতে গিয়ে ভোগান্তি বেড়েছে। ফলে ট্রাফিক ব্যবস্থা যেন ভেঙে পড়েছে।

[৭] হাজী হোসেন প্লাজা মার্কেটের সাধারণ সম্পাদক বশির উদ্দিন বলেন, একদিকে লকডাউন, অন্যদিকে ধীরগতির সড়ক উন্নয়ন কাজে আমাদের ব্যবসার অবস্থা শোচনীয়। সড়কে প্রচুর ধুলাবালু ও নানা সমস্যার কারণে ক্রেতাসাধারণ এখন স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় আসতে চায় না।

[৮] ডেমরা জোনের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) মো. জিয়া বলেন, সড়কে যানজট সৃষ্টি হলে চলাচলকারীরা ক্ষোভে ফুঁসবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যেভাবে ধীরগতিতে উন্নয়ন চলছে এতে কোনোভাবেই সুষ্ঠু ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বজায় রাখা সম্ভব নয়। কারণ রাজধানীর প্রবেশদ্বার হিসাবে ডেমরায় গুরুত্বপূর্ণ এ দুটি সড়ক দিয়ে প্রতিদিন লাখো পণ্য ও যাত্রীবাহী যানবাহন চলাচল করে। আর সড়কে অতিরিক্ত যানবাহন থাকলে এবং সুষ্ঠুভাবে যেতে না পারলে যানজট লেগেই থাকবে। এজন্য সড়কে অনেক রাত পর্যন্ত ট্রাফিক ডিউটি বাড়ানো হয়েছে।

[৯] ঢাকা সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মো. এমদাদুল হক বলেন, ড্রেনেজ ব্যবস্থা রেখেই ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কটির উন্নয়ন কাজ চলছে। তাছাড়া বড় প্রকল্পের কাজে একটু সময় লাগবেই। বৃহৎ স্বার্থের জন্য কিছু কষ্ট সবাইকে মেনে নিতে হবেই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত