শিরোনাম
◈ বনশ্রীতে জুতার কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৪ ইউনিট ◈ যড়যন্ত্র না থাকলে পদ্মা সেতুতে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ন বন্ধ হলো কেন, প্রশ্ন হাইকোর্টের ◈ শিমুলিয়া ঘটে প্রায় ২০০ বাইক নিয়ে ছাড়লো ফেরি ◈ ‘সুপ্রিম কোর্টের ১২ বিচারপতি করোনায় আক্রান্ত’ ◈ প্রথম ১৫ ঘণ্টায় পদ্মা সেতুতে আয় দেড় কোটি টাকা ◈ বিশ্ব গণমাধ্যমে পদ্মা সেতু: জাতির গর্ব ও সামর্থ্যের প্রতীক  ◈ পদ্মা সেতুর জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছে এশিয়ার ৫ দেশ ◈ নাশকতাই ছিলো পটুয়াখালী ছাত্রদল কর্মী বাইজীদের উদ্দেশ্য: সিআইডি ◈ জাতিসংঘে র‌্যাপোটিয়ারের দাবি অর্থহীন: তথ্যমন্ত্রী ◈ খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে বাসভবনে দুই নাতনি

প্রকাশিত : ১৯ মে, ২০২১, ০৮:০৪ রাত
আপডেট : ১৯ মে, ২০২১, ০৮:০৪ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] হঠাৎ ভয়ানক কেঁপে উঠলো চীনের ৯০০ ফুটের সুউচ্চ ভবন, [২] ভূমিকম্প নেই, আবহাওয়াও ছিলো অনুকূল

সুমাইয়া ঐশী: [৩] চীনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর শেনজেনের আকাশচুম্বি ভবন এসইজি প্লাজা মঙ্গলবার আকস্মিক সজোরে কেঁপে ওঠে। এই ভবনটি শহরের অন্যতম ব্যস্ততম বাণিজ্যিক অঞ্চলে অবস্থিত হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। স্থানীয় সময় বেলা ১২টা ৩০ এ ঘটে এ ঘটনা। ঐ সময় ভবনে অন্তত ১৫ হাজার মানুষ ছিলো। সিএনএন, নিউজ ওপেনার

[৪] হতাহতের কোনও ঘটনা না ঘটলেও মুহূর্তেই চারদিকে মানুষের ছোটাছুটি শুরু হয়। ৯৫৭ ফুটের এই ভবন থেকে ৯০ মিনিটের মধ্যেই সকলকে বের করে আনা হয়। তবে কেনও ভবনটি এমন কেঁপে উঠলো তার কারণ নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা।

[৫] বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। দেশটির আবহাওয়া অফিস বলছে, মঙ্গলবার ঐ অঞ্চলে কোনও ভূমিকম্প হয়নি, আবহাওয়াও ছিলো স্বাভাবিক। ঐ সময় বাতাসের গতিবেগ ছিলো প্রতি ঘণ্টায় ৩২ কিলোমিটার, যাকে বর্ণনা করা হয় ‘তাজা বাতাস’ হিসেবে। অর্থাৎ ভবনটি দুলে ওঠার পেছনে বাতাসের কোনও ভূমিকা ছিলো না। অন্যদিকে, ভবনের মূল কাঠামোতেও কোনও ত্রুটি পাওয়া যায়নি। তাই ঠিক কী কারণে এ ঘটনা ঘটলো তা স্পষ্ট নয়।

[৬] ২০০০ সালে এসইজি ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হয়। এটি উচ্চতার দিক থেকে শেনজেন শহরের ১৮তম এবং গোটা চীনে ১০৪তম আকাশচুম্বি ভবন। সম্পাদনা: আসিফুজ্জামান পৃথিল

  • সর্বশেষ