প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঈদের দিনে‘মদ পানের পর’ পোশাককর্মীর মৃত্যু, বান্ধবী আটক

ডেস্ক নিউজ: নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে রুমা আক্তার (১৭) নামে এক পোশাককর্মীর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তার এক বান্ধবীকে আটক করা হয়েছে। ঈদুল ফিতরের দিন রাতে রুমা তার বান্ধবী টুম্পার বাসায় মদ পান করেন বলে জানা গেছে।

জানা যায়, মদপানের পর শনিবার ভোর ৪টার দিকে রুমা অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতলে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এরপর লাশ নিয় হাসপাতাল থেকে সিএনজিতে ওঠে টুম্পা। টুম্পার আচরণ সন্দেহজনক হলে সিএনজি চালক কৌশলে লাশসহ টুম্পাকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় নিয়ে আসেন।

পুলিশ টুম্পাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। নিহত রুমার শরীরে কোথায় কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে এটি হত্যা না স্বাভাবিক মৃত্যু পুলিশ এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক নিশ্চিত কিছু বলতে পারেনি।

নিহত রুমা কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার গনেশপুর গ্রামের আব্দুর রহিমের মেয়ে ও নয়া আটি মুক্তিনগর আমির পাগলার বাড়ির ভাড়াটিয়া।

তিনি একটি পোশাক কারখানার হেলপার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আটক টুম্পা পটুয়াখালি জেলার সদর থানার বল্লভপুর কালুকাপুর গ্রামে বাসিন্দা।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার (ওসি তদন্ত) সাইফুল ইসলাম জানান, নাসিক আইলপাড়া এলাকায় একটি ড্যান্স একাডেমিতে ঈদের দিন রাতে রুমা মদ পান করে করেন। সেখানে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। ভোর ৪টার দিকে রুমা আক্তারের মায়ের ফোনে বান্ধবী টুম্পা ফোন দিয়ে জানায় রুমা অসুস্থ্য। তার অবস্থা খারাপ। খবর পেয়ে রুমার মা ও বোন ফারজানা খোঁজ করতে বের হয় বান্ধবী টুম্পার বাসা খুঁজে না পেয়ে বাসায় ফিরে যান।

নিহত রুমার মায়ের দাবি, তার মেয়ের মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। রুমাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যাবিচার দাবি করছেন।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান জানায়, ময়নাতদন্তের আগে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার বান্ধবী টুম্পাকে আটক করা হয়েছে। সূত্র: দেশ রুপান্তর নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত