প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]পশ্চিমবঙ্গে বড় ব্যবধানে হেরেছে বিজেপি [২]দলীয় বিশ্লেষণে উঠে এসেছে পাঁচটি কারণ

সুমাইয়া ঐশী: [৩] সদ্য শেষ হওয়া পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনের ফলাফল বলছে, নিজেদের লক্ষ্যমাত্রার ধারে কাছেও যেতে পারেনি বিজেপি। বড়সড় ব্যাবধানে মুখ থুবড়ে পড়েছে দলটি। তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে ২১৩টি আসন, এর বিপরীতে বিজেপির সম্বল মাত্র ৭৭টি। এনিয়ে ইতোমধ্যেই হারের কারণ খুঁজতে লেগে পড়েছে দলটি, এতে বেরিয়ে এসেছে পাঁচটি সম্ভাব্য কারণ। আনন্দবাজার, দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া, বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড

[৪] ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে মাত্র তিনটি আসন পায় বিজেপি। এরপরই এই নির্বাচনে সরাসরি ক্ষমতায় আসার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করে দলটি। বিশ্লেষণ বলছে, এটি ছিলো অত্যন্ত উচ্চাকাঙ্খা। এক্ষেত্রে দলটির অভিজ্ঞতার যথেষ্ট ঘাটতি ছিলো। লোকসভা নির্বাচনের ফলকে বিধানসভা নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেওয়াই ছিলো বড় ভুল।

[৫] এছাড়া মমতা বন্দোপাধ্যায়ের বিপরীতে দাঁড়াতে পারে, এমন কোনও শক্ত অবস্থানের প্রার্থীকে তুলে ধরতে পারেনি বিজেপি, এমনটাই মনে করছেন বিশ্লেষকরা। এতে বিজেপির প্রতি জনসমর্থনে বড় প্রভাব পড়েছে। পাশাপাশি এই নির্বাচনে বিজেপিকে ‘বহিরাগত’ তকমা দিয়েছে তৃণমূল। এর বিপরীতে কড়া জবাব না দিতে পারায় তৃণমূলের এই আক্রমণকেই সমর্থন দিয়েছেন ভোটারা।

[৬] বিশ্লেষণ বলছে, প্রচারণায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে ধর্মীয় শোষণের প্রতি জোর দিয়ে মুসলিমদের ভোট বাগে আনা গেলেও হিন্দু ধর্মের সিংহভাগ ভোটারই হাতছাড়া হয়েছে দলটির। পাশাপশি রাজ্য নেতারাদের দাবি, সবক্ষেত্রে প্রার্থী নির্বাচন যথাযথ হয়নি। নির্বাচনের আগে যারা তৃণমূল থেকে বিজেপিতে এসেছেন, তাদেরকে ভালো চোখ নেয়নি বিজেপির সমর্থক, কর্মী এবং রাজ্যের ভোটাররা। সম্পাদনা : রাশিদ

সর্বাধিক পঠিত