প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাটকা নিধন প্রতিরোধ অভিযান মার্চ ও এপ্রিল মাসে গ্রেপ্তার ১ হাজার ৩২ জন

সুজন কৈরী : জাটকা নিধন প্রতিরোধে অভিযান চালিয়ে চলতি বছরের মার্চ ও এপ্রিল মাসে ১ হাজার ৩২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া জাটকা নিধনে ব্যবহৃত ২২৩টি নৌকা ও ২৩টি ট্রলার আটক করা হয়েছে।

রোববার নৌ পুলিশের ট্রেনিং, লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া বিভাগের অতিরিক্ত সুপার সাথী রানী শর্মা জানান, নৌ পথের সার্বিক নিরাপত্তা ও নৌ সম্পদ রক্ষায় নৌ পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করছে। জাতীয় মাছ ইলিশসহ নদীর মৎস্য সম্পদ রক্ষায় নৌ পুলিশ প্রতিবছর ১ নভেম্বর থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত জাটকা নিধন প্রতিরোধ কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। অধিকন্তু মার্চ ও এপ্রিল মাসে বিশেষ অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে নৌ পুলিশ জাটকা সংরক্ষনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছর মার্চ ও এপ্রিল মাসে নৌ পুলিশ জাটকা নিধন প্রতিরোধ কার্যক্রম পরিচালনা করে বিপুল পরিমান অবৈধ জাল ও জাটকা জব্দ করেছে।

তিনি জানান, গত বছর ২৯ কোটি ৮৯ লাখ ৬০ হাজার ৭৮০ মিটার ও চলতি বছর ৪৮ কোটি ৮৮ লাখ ৬৮ হাজার ১০৫ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া গত বছর ৫৬ হাজার ৮৫৬ কেজি জাটকা ও চলতি বছর ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮৫১ কেজি জাটকা জব্দ করা হয়েছে।

নৌ পুলিশ প্রধান ডিআইজি মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, জাটকা নিধন প্রতিরোধ অভিযানের সুফল ইতোমধ্যেই দেশের জনগন পেতে শুরু করেছে। কারন গত বছর মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানের সফলতার কারনে এ বছর ইলিশের ডিমের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়ে ৭ লাখ ৫৭ হাজার কেজিতে উন্নীত হয়েছে। ফলে যেখানে গত বছরে জাটকা আহরনে ক্যাচ পার ইউনিট এ্যফট (সিপিইউই) ছিল ১০ দশমিক ৫ কেজি, সেখানে চলতি বছর জাটকা আহরনের সিপিইউই হচ্ছে ১৯ দশমিক ৯ কেজি। এজন্য আশা করা যায়, গত বছরের তুলনায় এ বছর ইলিশের উৎপাদন দ্বিগুন হবে। ফলে দেশের প্রতিটি মানুষের কাছে রূপালি ইলিশ আরও সহজলভ্য হবে এবং দেশের অভ্যন্তরে আমিষের প্রয়োজন মিটিয়ে দেশের বাহিরে রপ্তানির মাধ্যমে জিডিপি বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত