প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কোন মুসলমান না বিয়ার পান করে, না চেখে দেখে!: ইলিয়াস মাও

ডেস্ক রিপোর্ট : সোমালিয়ান বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান ইলিয়াস মাও এর একটি সাক্ষাৎকার অত্যন্ত প্রাঞ্জল ভাষায় অনুবাদ করে আরিফুর রহমান তার ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট করেছেন। অনুবাদটি এতই ঝরঝরে ও স্বতঃস্ফূর্ত, মনেই হবে না কারো কথা অনূদিত হয়েছে। বরাবরের মতোই অনেক ভালো লাগার মত একটি পোস্ট৷ আমাদেরসময়.ডট কমের পাঠকদের জন্য পোস্টটি নিচে হুবহু দেওয়া হলো:

আমার নাম Ilyas Mao ইলিয়াস মাও। না চীনের মাও জে দং আমাদের আত্মীয় নন, হা হা হা..। আমার জন্ম সোমালিয়ায়। আমার বয়স যখন ৮ তখন আমার পরিবার কানাডায় অভিবাসিত হয়। আমরা অন্টারিওর গেল্ফে (Guelph) তখন থেকেই বাস করি পরিবার নিয়ে। টরন্টো থেকে একঘন্টায় চলে আসা যায় আমাদের সুন্দর লেকের শহরে। জানেনতো আমাদের এলাকার আঙুরের বিয়ার পৃথিবী বিখ্যাত।
না, কোনদিন চেখে দেখিনি, শখও হয়নি। জি, কোন মুসলমান না বিয়ার পান করে, না চেখে দেখে।

আমার ছোটবেলার সেই ছোট্ট মফস্বল শহর গেল্ফ বদলে গিয়ে এটি এখন একটি শিক্ষা ও সংস্কৃতির শহর। ঠিক ধরেছেন, আমি গেল্ফ ইউনিভার্সিটিতেই মার্কেটিং অধ্যয়ন করেছি এবং বাণিজ্যে ব্যাচেলর ডিগ্রি লাভ করেছি।

আমি সবসময় সৃজনশীল ছিলাম, সেটি হোক অঙ্কন বা ডিজাইন। আমি আবার সঙ্গীত পছন্দ করি কিন্তু কোনো ওস্তাদের কাছে গান শিখিনি কখনো। আমার ছোটবেলায় বাবাকে সোমালিয়ার পল্লী সংগীত গাইতে শুনতাম, এক একা উদাস হয়ে গাইতেন, তার জন্মভূমির গাঁয়ের গান। আমি তার সুর গুনগুন করে কপি করতাম।

২০১৫ সাল থেকে আমি নাসিদ এবং ক্যাপেলা সংগীত গাইতে শুরু করলাম নিজে নিজে। কোন যন্ত্র ছাড়া শুধুমাত্র কণ্ঠ দিয়ে গান গাওয়ার পদ্ধতিকে নাসিদ বলা হয়। ভারতবর্ষে মিউজিক ছাড়া ধর্মের গানকে গজল বলে সেই রকম আরকি।
আর ক্যাপেলা হচ্ছে একই কণ্ঠকে বিভিন্নভাবে ব্যবহার করে মনে হবে সাথে যন্ত্র সঙ্গত করা হয়েছে, আসলে পুরো শব্দগুলিই মানব কণ্ঠে উদ্ভূত, আলাদা কোন যন্ত্রের মিউজিক যুক্ত করা হয়না।

নাসিদ এবং ক্যাপেলা এক্সপার্ট হবার কারণে হয়তো আমার কন্ঠ অসংখ্য হলিউড ফিচার ফিল্মে ও টিভি সিরিজের সাউন্ড ট্রাকে ব্যবহার করা হয়েছে।
হ্যা, সিটকম সিরিজের ‘এ ডিফারেন্ট টিউন’ ইউকে স্কাই টিভিতে প্রচারিত হয়েছিল ২০১৭ সনে, ওটার সাউন্ড ট্রাকে আমি ছিলাম।
আমি র্যাপ ( RAP) সংগীত শুনতে পছন্দ করতাম, কারণ এই সংগীত অনেক ইনোভেটিভ আর শুনতে ভালো লাগে এর রিদম। কিন্তু ভিতরের কথাগুলো খুব নোংরা ও অশ্লীল। তখন একদিন আমার মনে হলো, পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ট কথাগুলি দিয়ে আমি নাসিদ ও ক্যাপেলা গাইবো। আমার পছন্দ হলো আল্লাহর ৯৯টি নাম আসমাউল হুসনা। ২০২০ সনে গাইলাম।

এখন আমার সবচেয়ে ভালো লাগে আল্লাহর বিষয় নিয়ে গাইতে। মাত্র ছ’দিন হলো আমি আর ওমর মিলে একটি ক্যাপেলা করলাম, রাব্বানা আতিনা ফিদ্দুনিয়া হাসানা, ওয়াফিল আখিরাতি হাসানা, ওয়াকিনা আজাবান্নার। ‘ অর্থ : হে আমার প্রভু! আমাকে দুনিয়াতে কল্যাণ দান কর, আখেরাতেও কল্যাণ দান কর এবং আমাকে জাহান্নাম থেকে বাঁচাও। আল কোরআন,-সূরা বাকারা, আয়াত-২০১। পবিত্র কোরআনের এই দোয়াকে সর্বশ্রেষ্ঠ দোয়া বলা হয়।

পুরো ভিজুয়াল রেকর্ড করেছি টরন্টো ডাউন টাউনে। এখন আল্লাহর ৯৯ টি নাম শুনুন আমার করা সুরে।
ভালোবাসা ও সালাম নিবেন। Ilias Mao.

নোট: ইলিয়াসের সাক্ষাৎকারকে বাংলায় অনুবাদ করে দিয়েছি উপরে। টরন্টোতে আমি ডা: আরিফ আবু জর গিফরী মসজিদে প্রায়ই নামাজ পড়তে যাই। এটির মোতওয়াল্লী সোমালিয়ানরা। নামকরা ইসলামী পণ্ডিতগণ জুমার দিন ইংরেজিতে বয়ান করেন এখানে। জ্যামাইকার আবু আমিনা বিলাল ফিলিপস যার সাথে সৌদি থেকেই পরিচয় ছিলো অসম্ভব সুন্দর কথা বলেন প্রায়ই।

পুনশ্চঃ সোমালিয়ায় যেমন আছে পাইরেটস তেমন আছে পন্ডিত ও ভালো মানুষ। একটি দেশের সবাই সায়েম আনভীরের মতো খারাপ চরিত্রের হয়না।

সর্বাধিক পঠিত