প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রথমবারের মতো আর্মেনীয় গণহত্যার আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিলো যুক্তরাষ্ট্র

আখিরুজ্জামান সোহান: [২] প্রথম বিশ্বযুদ্ধকালে অটোম্যান সাম্রাজ্যে বিপুল সংখ্যক আর্মেনীয় নাগরিক হত্যাকাণ্ডকে গণহত্যা বলে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। প্রথম কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শনিবার (২৪ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে তিনি এই স্বীকৃতি দেন। শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া এই স্পর্শকাতর ইস্যুতে ঘোষণা তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে তুরস্ক। বিবিসি, আল জাজিরা, এনবিসি

[৩] প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ১৯১৫ থেকে ১৯১৭ সালের মধ্যে অটোম্যান সাম্রাজ্যে প্রায় ১৫ লাখ আর্মেনীয় নাগরিক নিহত হয়।

[৪] শনিবার হোয়াইট হাউজের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘অটোমান সাম্রাজ্যের শাসনামলে আর্মেনীয় গণহত্যায় নিহত সকলকে আমরা স্মরণ করছি এবং এ ধরনের বর্বরতা পুনরায় ঘটা প্রতিরোধ করতে আমরা আবারও অঙ্গীকার করছি।’

[৫] প্রথম বিশ্বযুদ্ধে অটোম্যান সাম্রাজ্যে আর্মেনীয় নাগরিকদের মৃত্যুর কথা স্বীকার করে থাকে তুরস্ক। তবে বরাবরই তারা এই হত্যাকাণ্ড কাঠামোগতভাবে সংগঠিত হওয়া কিংবা গণহত্যার কথা অস্বীকার করে আসছে। দুই ন্যাটো মিত্র যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হওয়ার মধ্যে আর্মেনীয় গণহত্যার স্বীকৃতি দিলো যুক্তরাষ্ট্র।

[৬] বাইডেনের বিবৃতিতে প্রত্যাখ্যান করে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বলেছেন, জনতোষণের ভিত্তিতেই এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। এক টুইট বার্তায় তিনি লেখেন, ‘আমাদের অতীত নিয়ে কারো কাছ থেকে কিছুই শেখার নেই।’

[৭] শনিবার আর্মেনীয় গণহত্যা দিবস পালন করছে আর্মেনিয়া। দীর্ঘ দিন থেকেই দেশটি যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্য দেশগুলোর কাছে এই হত্যাকাণ্ডকে গণহত্যার স্বীকৃতি দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আসছে। ২০১৯ সালে মার্কিন কংগ্রেসে আর্মেনীয় গণহত্যাকে স্বীকৃতি দিয়ে একটি প্রতীকী প্রস্তাব পাশ হয়। কিন্তু তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তা প্রত্যাখ্যান করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত