প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মদনের আওয়াল দীর্ঘ ৯ বছর পর জীবিত

জাকির আহমেদ: আব্দুল আওয়াল দীর্ঘ ৯ বছর ভোটার আইডি কার্ডে মৃত থাকার পর বুধবার (২১এপ্রিল) জীবিত হলেন । উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. হামিদ ইকবাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আওয়াল মদন পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডেও জাহাঙ্গীরপুর গ্রামের মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে।

তিনি ঢাকা থেকে প্রকাশিত একটি পত্রিকার প্রতিনিধি ও মদন উপজেলার করোনা বিষয়ক কমিটির সমন্বয়ক। নির্বাচন অফিস বর্তমানে ভোটার আইডি ৭২১৭২৬৭৩৩৬৩৯ নম্বরটি সংশোধন করে জটিলতা অবসান করেন।

২০১২ সালে ভোটার তালিকা হালনাগাদে আব্দুল আওয়ালকে মৃত উল্লেখ করা হয়। এ কারণে চাকরির আবেদনের পাশাপাশি সরকারি সবধরনের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছিলেন আব্দুল আওয়াল। এমন কী জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য করোনার টিকা পর্যন্ত দিতে পারেননি তিনি। এ নিয়ে খুবই দুর্বিষহ দিন অতিবাহিত করেছিলেন তিনি।

আওয়ালের স্ত্রী শারমিন আক্তার বলেন, আমার স্বামীর ভোটার আইডি কার্ডে মৃত থাকায় আমার শশুরের জমি খারিজ করতে পারছিল না। এমন কী এতদিন সে সরকারি কোন চাকুরিতে আবেদন করতে পারেনি। আমরা আজ খুশি। অবশেষে আমার স্বামী আজ মৃত থেকে জীবিত হওয়ার আইডি নম্বরটি পেল।

আব্দুল আওয়াল বলেন, আমি এই মাত্র উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে আমার জাতীয় পরিচয়পত্রের নিবন্ধন কাগজটি সংগ্রহ করেছি। এখন থেকে আর আমি যে মৃত তার আর বহন করতে হবে না। কাগজটি পেয়ে আমি খুবই খুশি।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. হামিদ ইকবাল বলেন, ভোটার তথ্য সংগ্রহকারী এবং তথ্য প্রদানকারীদের জন্য এমন জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। তবে সাংবাদিক আওয়াল সাহেবের ভোটার আইডি নিয়ে যে জটিলতা ছিল তা আজ সংশোধনের এনআইডি পেল। আওয়াল সাহেবের আইডি কার্ড নিয়ে আর কোন জটিলতা থাকল না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত