প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চট্টগ্রামে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে জাপা নেতার আর্কেড উদ্বোধন, আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস জেলা প্রশাসকের

রিয়াজুর রহমান: করোনা ভাইরাসের দিত্বীয় ঢেউয়ে যখন বাংলাদেশে নাজুক পরিস্থিতি বিরাজ করছে, এমন সময়ে সরকারের পক্ষ থেকেও বারবার সচেতন করে বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে ঠিক ওই সময়ে নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্যে জনসাধারণের কথা না ভেবে ঢাক -ঢোল পিটিয়ে লোক সমাগম করে চট্টগ্রামের জাতীয় পার্টির নেতা সোলাইমান আলম শেঠ’র মালিকানাধিন শেঠ প্রোপার্টিজের চকবাজারস্থ ”বালি আর্কেড” নামের সুপার শপিং মল উদ্ধোধন করা হয়েছে।

শুক্রবার (২ এপ্রিল) এ শপিং মল উদ্ধোধন করেন।

এ ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসনের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন জনসাধারণ। একই সাথে করোনা সংক্রমন বৃদ্ধির আশঙ্কাও করছেন সচেতন মহল। তবে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে গত শুক্রবারের  ২৪ ঘন্টার করোনার ফলাফলে জানা যায় ৫১৮ জন আক্রান্ত এবং ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা অতীতের সকল রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। এমন পরিস্থিতিতে গত শুক্রবার সন্ধ্যা ৬ টার পর জরুরী সেবা ও কাঁচা বাজার  ছাড়া সব ধরনের দোকানপাট ও মার্কেট বন্ধ রাখার আদেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এছাড়াও সব ধরনের বিনোদন কেন্দ্র , মেলা ও সিনেমা হল ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়, সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও অন্যান্য অনুষ্ঠানে জনসমাগম সীমিত করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশনা না মানলে আইনলঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছিল।

এর আগে গত ২৯ মার্চ সরকারের পক্ষ থেকে জনসমাগম এড়িয়ে চলাসহ ১৮টি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছিল।

এসব নির্দেশনার পরও প্রচুর লোকসমাগমের উদ্দেশ্যে প্রায় সপ্তাহব্যাপী  পত্রিকায় বিজ্ঞাপণ দিয়ে , সিএনজির মাধ্যমে মাইকিং করে ও লিফলেট বিলির মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়েছে। এমনকি ব্যবহার করা হয়েছে দুই বাংলার জনপ্রিয় সেলিব্রেটি জয়া আহসানের নামও।

গত ৩১ মার্চ  বালি আর্কেড এর নিচ তলায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রচার করে বেশি লোক সমাগমের উদ্দেশ্যে সোলাইমান আলম শেঠ বলেছিলেন উদ্বোধনের দিন অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ এবং কলকাতার জনপ্রিয় চলচ্চিত্র তারকা অভিনেত্রী জয়া আহসান। এছাড়াও পুরো রমজান মাসজুড়ে নানা আনুষ্ঠানিকতায় মার্কেটে দেশখ্যাত তারকাদের অংশগ্রহণ থাকবে।

তার এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে নগরবাসী গত শুক্রবার বিকেল থেকেই ওই স্থানে ভীর জমাতে থাকে। সন্ধ্যায় এটি পরিনত হয় জনসমুদ্রে। অথচ এই ব্যপারে স্থানীয় প্রশাসন প্রতিরোধের কোন ব্যবস্থাই নেননি বলে উপস্থিত লোকজনের মাধ্যমে জানা গেছে। উপস্থিতির কতিপয় লোকের মুখে মাস্ক থাকলেও মাস্ক ছাড়াও এসছেন অনেকে।

এসময় গণমাধ্যমের ক্যামরায় এসব চিত্র ধারণে শেঠ প্রোপার্টিজের নিরাপত্তা কর্মীরা বাঁধা দিতে দেখা যায়। শুধু তাই নয় এই উদ্বোধনী পর্ব শেষে ব্রিফিংয়ের সময় দুই একজন সংবাদ কর্মী আয়োজক জাপা নেতা সোলায়মান শেঠকে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে এই সময়ে এমন আয়োজনের বিষয়ে প্রশ্ন করলে সেখানে উপস্থিত সোলায়মান শেঠের শুভাকাংখীরা প্রকাশ্যে ক্ষিপ্ত হয়ে সংবাদ কর্মীদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে বলেও অভিযোগ উঠেছে। যদিও পরে সংবাদ কর্মীর কাছে ক্ষমা চেয়েছেন সোলাইমান আলম শেঠ।

এবিষয় শেঠ প্রোপার্টিজের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সোলাইমান আলম শেঠ নিজেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সাথে তুলনা করে বলেন – তারাতো (হেফাজতে ইসলাম) এত বড় মিছিল করছে স্বাস্থ্যবিধি কি মানছে ? পরে তিনি চা’র দাওয়াত দিয়ে তার অফিসে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন।

সরকারী ও স্থানীয় প্রশাসনের আদেশকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে করোনার সাথে আলিঙ্গন করার বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন- খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ম্যাজিস্ট্রেট পাঠিয়েছিলাম ,অভিনেত্রী জয়া আহসানকে অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দেইনি। জনসমাগমের বিষয়টি স্বীকার করে তিনি বলেন ঢাক-ঢোল পিটিয়ে এমন জনসমাগম করে তিনি অন্যায় করেছেন, বিষয়টি আমরা তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত