প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] হোসেনপুরে রাস্তার ইট তুলে নেওয়ায় দুর্ভোগে এলাকাবাসী

আশরাফ আহমেদ:[২] কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে ত্রাণমন্ত্রণালয়ের দেয়া ৪৯ লাখ টাকার একটি রাস্তার ইট তুলে নিল এলাকার একটি প্রভাবশালী মহল। ঘটনাটি উপজেলার গোবিন্ধপুর ইউনিয়নের উত্তর পানান এলাকায় ঘটেছে।

[৩] এলাকাবাসি এ ব্যাপারে হোসেনপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। স্থানীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ নিবেন বলে এলাকাবাসিদের আশ্বাস দিয়েছেন।

[৪] লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, গ্রামীণ রাস্তা মজবুত করার লক্ষে হেয়াররিং (এইচ,বি,বি) করণ প্রকল্প ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্যাকেজ আওতায় গোবিন্দপুর দক্ষিণ রমজান আলীর বাড়ির সংলগ্ন পাকা রাস্তা হতে উত্তর পানান সরকারী প্রথামিক বিদ্যালয় ও স্বাস্থ্য কমিমিউনিটি ক্লিনিকের পাশ দিয়ে মালুর বাড়ি পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার হেয়াররিংবল্ডের কাজ সম্পন্ন হয়।

[৫] ত্রাণমন্ত্রনালয়ের আওতাধীন তখনকার স্থানীয় এমপি ও জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মাধ্যমে ৪৯ লাখ টাকা তুপ বরাদ্ধ দেয়া হয়েছিল। এ গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা দিয়ে এলাকার লোকজন স্থানীয় কমিউনিটি ক্লিনিকে ও ছাত্র/ছাত্রীরা উত্তর পানান প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়া আসা করে।

[৬] কিন্তু মধ্যরাস্তা থেকে কিছুদিন পুর্বে এলাকার প্রভাবশালী দলবল নিয়ে দিবালোকে রাস্তার ইট তুলে নিয়ে নিজঘরের কাজে লাগায়। তাতে এলাকাবাসী প্রতিবাদ করলে তাদেরকে হত্যার হুমকি দেয় তারা।

[৭] ফলে রাস্থায় বর্তমানে গর্ত হয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে এলাকার ছাত্র/ছাত্রী স্কুলে ও জরুরী রোগী নিয়ে কমিউনিটি ক্লিনিকে আসা যাওয়া করতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এলাকাবাসি প্রভাবশালীদের এমন অন্যায়ের বিচার ও দুর্ভোগের প্রতিকার চেয়ে  ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবী জানিয়েছেন।

[৮] নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার কয়েকজন বলেন, রাস্তা থেকে ইট তুলে নেয়ায় রাস্তা দিয়ে এখন আর কোন যানবাহন চলাচল করছে না। এতে আমরা চরম ভোগান্তিতে পরে আছি। আমাদের এ দুর্ভোগ থেকে রক্ষা পেতে চাই।

[৯] এ বিষয়ে আশরাফ আলী ও লিয়াকত আলী জানান, আমাদের বাড়ির সিমানায় দিয়ে রাস্তা গিয়েছে তাই আমাদের ঘর তৈরী প্রয়োজনে কিছু ইট তুলা হয়েছে। তবে তা সমস্যা হবে না। পাশেই অন্য রাস্তা রয়েছে।

[১০] এ ব্যাপারে হোসেনপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাবেয়া পারভেজ জানান, আমরা এলাকাবাসির মাধ্যমে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। উপজেলা ভূমি (কমিশনার) এ্যাসিল্যান্ডকে তা খতিয়ে দেখে দ্রুত একটি প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রতিবেদনটি হাতে পৌঁছলেই অন্যায়কারীদের বিরুদ্ধে আইননানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।সম্পাদনা:অনন্যা আফরিন

সর্বাধিক পঠিত