প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘নগদ’কে নিয়ে গুজব: অজ্ঞাতনামা সহস্রাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা

আতাউর অপু : সরকার ও সরকারি সেবার বিরুদ্ধে গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিশীলতা সৃষ্টির প্রচেষ্টা চলাচ্ছে একটি স্বার্থান্বেষী সংঘবদ্ধচক্র। সংঘবদ্ধ অপপ্রচার রোধ ও এ বিষয়ে আইনগত প্রতিকার চেয়ে গত বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার সিএমএম কোর্টে মামলা করেছে সরকারের ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’।

গত কয়েক দিন ধরে সারা দেশে অন্তত তিন লাখ লিফলেট বিতরণ করেছে একটি সংঘবদ্ধচক্র। আর এ কাজে তারা সরাসরি নিয়োজিত করেছে ১০ হাজারের বেশি কর্মীকে। বিষয়টি রোধ করতে অজ্ঞাতনামা সহস্রাধিক ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেছে ‘নগদ’।

তবে চ্যানেল আই বলেছে মামলা করা হয়েছে অজ্ঞাতনামা ১০ হাজার জনের বিরুদ্ধে।

২০১৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি পাইলট প্রকল্প হিসেবে চালু ও ২৬ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধন করা এই প্রতিষ্ঠানটিকে অবৈধ দাবি করা হয়েছে লিফলেটে।

নগদকে যুবক ও ডেসটিনির মতো প্রতিষ্ঠান দাবি করে লিফলেটে বলা হয়েছে, ‘আপনারও এমন কোনো কোম্পানির সাথে ব্যবসায়িক সম্পর্ক আছে কি, যেখানে মুহূর্তেই আপনার সম্পূর্ণ বিনিয়োগ হাওয়া হয়ে যাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।’

ডাক বিভাগের মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান নগদের বিরুদ্ধে সারা দেশের এজেন্টদের মধ্যে অন্তত তিন লাখ লিফলেট বিতরণের তথ্য পেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মামলার নম্বর ২৪৯/২১। ‘একটু ভেবে দেখবেন কি’ শিরোনামে লিফলেটটিতে ‘নগদ’ এর বিরুদ্ধে অসত্য তথ্য যুক্ত করে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। প্রতিহিংসার কারণে একটি চক্র ভুয়া খবর রটিয়ে গ্রাহকদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে।

এতে বলা হয়, অসত্য তথ্য দিয়ে গুজব ছড়ানোয় নগদ আর্থিকভাবেও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। মামলাটি করেছেন নগদের লিগ্যাল অফিসার তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী। তার জবানবন্দি গ্রহণ করে বিচারক মইনুল ইসলাম মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আগামী ২০ এপ্রিলের মধ্যে তাদের এ বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেছেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।

নগদ এর হেড অফ লিগ্যাল অ্যাফেয়ার্স রাশেদ বিন এহসান  মামলা সংক্রান্ত এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠনের মতো করে বিভিন্ন কৌশলে এবং খুবই গোপনীয়তার সঙ্গে দেশব্যাপী সরকারবিরোধী ও সরকারি সেবার বিরুদ্ধে এসব লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। লিফলেটগুলোতে সরকারকে সরাসরি হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে।

রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত কয়েক দিনে একটি আর্থিক কোম্পানি তাদের ডিস্ট্রিবিউটরদের মাধ্যমে এসব লিফলেট বিতরণ করিয়েছে। পরে ডিস্ট্রিবিউটরদের কর্মীরা বিভিন্ন এজেন্ট পয়েন্টে গিয়ে এজেন্টদের হাতে হাতে এসব লিফলেট দিয়ে এসেছেন। বিভিন্ন এজেন্ট পয়েন্টে থাকা সিসি ক্যামেরায় যা ধরা পড়েছে।

লিফলেট বিতরণের এ সংক্রান্ত বেশ কিছু ভিডিও এরইমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে, যা থেকে নিশ্চিত হওয়া যায় কোনো একটি কোম্পানির লোকেরা এসব লিফলেট বিতরণের দায়িত্ব পালন করছেন। বিভিন্ন ভিডিওতে পারস্পরিক কথোপোকথন থেকেও দেশি-বিদেশি অংশীদারিত্বে পরিচালিত আর্থিক কোম্পানিটির নাম চলে এসেছে।

প্রায় দুই বছর আগে যাত্রা শুরু করা নগদ এরই মধ্যে বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। প্রতিদ্বন্দ্বী অন্যান্য কোম্পানির চেয়ে প্রায় অর্ধেক মূল্যে টাকা স্থানান্তর সুবিধার কারণে তাদের গ্রাহক ক্রমেই বাড়ছে।

নগদ এর হিসাবে সারাদেশে তাদের গ্রাহক সংখ্যা তিন কোটি ১০ লাখ। আর এজেন্ট সংখ্যা দুই লাখের বেশি। প্রতি মাসে নগদ এর মাধ্যমে লেনদেনের পরিমাণ ৩০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে।

নগদ পরিচালনা করছে থার্ড ওয়েভ টেকনোলজিস লিমিটেড নামের একটি কোম্পানি। তবে কোম্পানিতে ডাক বিভাগের ৫১ শতাংশ শেয়ার আছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত