প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কর্মস্থলে দুর্ঘটনায় মৃত্যুর নির্ধারিত ক্ষতিপূরণের পরিমান শ্রমিকদের সঙ্গে উপহাসের নামান্তর

শরীফ শাওন: [২] গার্মেন্ট শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি আহসান হাবিব বুলবুল বলেন, রপ্তানিমুখী শিল্পের মুনাফায় শ্রমিকদের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। শ্রমিকদের অবসানকালীন সুবিধা যেন মালিকরা আত্মসাৎ করতে পারে, শ্রম আইনে সে সুযোগও দেওয়া হয়েছে।

[৩] শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শ্রমিক হয়রানি বন্ধে শ্রম আইনের কালো ধারা বাতিলের দাবিতে মানববন্ধনে তিনি আরও বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন তথা সম্পদ সৃষ্টির কারিগর শ্রমিকরা। তবে পুঁজি মালিকদের স্বার্থ রক্ষায় আইএলও কনভেনশন অনুসারে শ্রমিকদের মানসম্মত জীবনধারণ অধিকার, স্বাধীনভাবে সংগঠিত হওয়া ও দরকষাকষির অধিকারের স্বীকৃতি দেয়নি রাষ্ট্র।

[৪] বুলবুল বলেন, কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনাজনিত কারণে মৃত্যু বা পঙ্গুত্বে আজীবন আয়ের সমপরিমান ক্ষতিপূরণ, মুনাফায় অংশগ্রহণ, অবসরকালীন সুবিধা, বাজার মূল্যের সঙ্গে মজুরি নির্ধারণ ও ট্রেড ইউনিয়ন অধিকর নিশ্চিত করতে হবে।

[৫] স্বাধীনতা অর্জনে যারা জীবন দিয়েছিলেন তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ শ্রমজীবী মানুষ হলেও ২০০৬ সাল পর্যন্ত তাদের কর্মভাগ্য নির্ধারিত হয়েছে ব্রিটিশ ও পাকিস্থান আমরের ঔপনিবেশিক আইন দ্বারা। ২০১৩ ও ২০১৮ সালে শ্রম আইন সংশোধন হয়েছে, কিন্তু প্রতিবারই শ্রমজীবীরা প্রতারিত হয়েছে, অধিকার আরও সংকুচিত হয়েছে।

[৬] এসময় শ্রম আইনের ২৩, ২৬, ২৭ (৩ক), ১৭৯ (২.৫), ১৮০ (১খ), ২৩২(৩) নং ধারাসহ শ্রমিক স্বার্থ বিরোধী ধারাগুলো বাতিলের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। নির্যাতন মুক্ত কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করতে আইএলও কনভেনশন অনুস্বাক্ষরেরও দাবি জানিয়েছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত