প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোহিঙ্গাদের সার্বিক নিরাপত্তায় কাজ করছে এপিবিএন: অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মোশারফ হোসেন

মাসুদ আলম : আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) প্রধান আরও বলেন, গত বছরের জুলাই থেকে কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়ায় আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব দেওয়া হয় এপিবিএনকে। সেখানে ৩৪টি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ১২শর বেশি এপিবিএনের সদস্য কাজ করছেন। এছাড়া ভাসানচরের রোহিঙ্গাদের সার্বিক নিরাপত্তায় ২৩৯ সদস্য কাজ করছেন। ভাসানচরের রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তায় ১৭-এপিবিএন ব্যাটালিয়নের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। ওই ব্যাটালিয়নটি রোহিঙ্গা ও অভ্যন্তরীন নিরাপত্তায় কাজ করবে। এপিবিএন দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে রোহিঙ্গা ক্যাম্প গুলোতে অপরাধ অনেকটা কমে এসেছে।

মোশারফ হোসেন বলেন, এপিবিএনের ১৫টি ব্যাটালিয়ন রয়েছে। ২০১৯ সাল থেকে এপিবিএনকে বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এর ফলে যাত্রী হয়রানি কমে এসেছে। যাত্রীদের কিছু চুরি হলে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে তাৎক্ষণিক অপরাধীদের শনাক্ত করে যাত্রীদের চুরি যাওয়া মালামাল ফেরত দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এপিবিএন প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি অস্ত্র উদ্ধার করেছে । তাছাড়া মাদক, চোরাচালানকৃত পণ্য ও বিস্ফোরক উদ্ধার, মাদক ব্যবসায়ী ও অপরাধীদের গ্রেপ্তারে সফলতা রয়েছে। পাশাপাশি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা ও চেকপোষ্টসহ বিভিন্ন অভিযানও পরিচালনা করছে। এছাড়া সব ধরনের নির্বাচনি দায়িত্ব পালন করে থাকে।

মোশারফ হোসেন বলেন, এপিবিএন আইজিপির রিজার্ভ ফোর্স হিসেবে কাজ করছে। এছাড়া দেশি-বিদেশি অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিরাপত্তা, গণভবন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, সংসদ, কুটনৈতিক এলাকা, সচিবালয়সহ গুরুত্ব স্থানে কাজ করছে। এপিবিএনে প্রায় ১২ হাজারের বেশি সদস্য রয়েছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত