প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গাভাস্কারের কলাম, কোহলি ও নটারাজানের পরিস্থিতি এক হলেও ভারতীয় বোর্ডের নিয়ম ভিন্ন

স্পোর্টস ডেস্ক : [২] সন্তানসম্ভাবা স্ত্রীর পাশে থাকতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাত্র একটি টেস্ট খেলেই দেশে ফিরেছেন বিরাট কোহলি। যা একেবারেই পছন্দ হয়নি সুনিল গাভাস্কারের। এর ফলে থাঙ্গারাসু নাটারজান- রবিচন্দ্রন অশ্বিনের উদাহরণ টেনে কোহলির সমালোচনা করেছেন ভারতের সাবেক এই ক্রিকেটার। সেই সঙ্গে ভারতীয় ক্রিকেটে বৈষম্যের অভিযোগও তুলেছেন তিনি।

[৩] সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী জানুয়ারিতে প্রথম সন্তানের বাবা হতে যাচ্ছেন কোহলি। যে কারণে সফরের আগেই ভারতীয় এই অধিনায়কের পিতৃত্বকালীন ছুটি মঞ্জুর করেছিল বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)। এর ফলে অ্যাডিলেড টেস্ট খেলে দেশে ফিরেছেন সময়ের সেরা এই ক্রিকেটার।

[৪] কোহলি মতো ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) প্লে অফ চলাকালীন প্রথমবারের মতো বাবা হয়েছেন নাটারাজান। ভারতীয় দলের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া যেতে হবে বলে তাকে ছুটি দেয়নি বিসিসিআই। যদিও বাঁহাতি এই পেসার ছিলেন না ভারতের স্কোয়াডে। শুধু মাত্র নেট বোলার হিসেবে যেতে হবে বলেই ছুটি পাননি তিনি। একেক ক্রিকেটারের জন্য একেক নিয়ম, এমনটা ভালো লাগেনি গাভাস্কারের।

[৫] এ প্রসঙ্গে গাভাস্কার নিজের কলামে তিনি লিখেছেন, আইপিএলের প্লে-অফ যখন চলছিল, তখন প্রথমবারের মতো নটরাজন বাবা হয়েছিল। কিন্তু ওকে বলা হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া সিরিজের জন্য থেকে যেতে। শুধু তাই নয়, ও ভারতীয় দলেও ছিল না। ও ছিল নেট বোলার। ভাবুন একবার। একজন ম্যাচ উইনারকে (যদিও অন্য ফরম্যাটে) বলা হচ্ছে নেট বোলার হতে। তার ওপর বাবা হওয়ার সময় তাকে ছুটি দেওয়া হচ্ছে না।

[৬] তিনি আরও লিখেছেন, অস্ট্রেলিয়া সিরিজ শেষ হলে, অর্থাৎ জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহের আগে ও দেশে ফিরতে পারবে না। তার আগে সদ্যাজাত মেয়ের মুখও দেখতে পারবে না। উল্টো দিকে দলের অধিনায়ক বাবা হবে বলে প্রথম টেস্ট খেলেই দেশে ফিরে আসছে। একেকজনের জন্য একেকরকম নিয়ম।

[৭] এছাড়া অশ্বিনের উদাহরণ টেনে ভারতীয় ক্রিকেটে বৈষম্যের অভিযোগ তুলেছেন সাবেক এই ক্রিকেটার। অশ্বিনের উদাহরণ দিতে গিয়ে তিনি লিখেছেন, অশ্বিনকেও মাঝেমাঝেই ভুগতে হয়েছে। সেটা ওর বোলিংয়ের জন্য নয়। ওর বোলিং নিয়ে একজন মূর্খও প্রশ্ন তুলবে না। কিন্তু ওকে সমস্যায় পড়তে হয়েছে টিম মিটিংয়ে সোজাসাপ্টা কথা বলার জন্য, বুদ্ধি-বিবেচনা প্রয়োগ করার জন্য।

[৮] তিনি আরও লিখেছেন, একমত না হলেও বাকিরা যেখানে চোখ বুজে, মাথা নেড়ে সবকিছুতে সায় দিয়ে যায়, অশ্বিন সেটা করে না। তাই একটা ম্যাচে একটু বেশি উইকেট না পেলেই ওকে পরের ম্যাচে বসতে হয়। এটা কিন্তু প্রতিষ্ঠিত ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে হয় না। এটাই ভারতীয় ক্রিকেট। বিভিন্ন লোকের জন্য বিভিন্ন নিয়ম। আমার কথা বিশ্বাস না হলে একবার অশ্বিন বা নটরাজনকে জিজ্ঞেস করে দেখুন। – জি নিউজ / ক্রিকফ্রেঞ্জি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত