প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কওমী মাদ্রাসা নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় বিধি প্রণয়ন করতে আইনি নোটিশ

নূর মোহাম্মদ: [২] স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন সচিব, শিক্ষা সচিব, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে এ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার ল’ এন্ড লাইফ ফাউন্ডেশনের পক্ষে ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব ও ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাওছার ইমেইল ও ডাকযোগে এ নোটিশ পাঠান।

[৩] বলাৎকারকে ধর্ষণ হিসেবে গণ্য করে মৃত্যুদণ্ডের বিধান করতে বলা হয়েছে নোটিশে। নোটিশ প্রাপ্তির ৫ দিনের মধ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষে না নিলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে এতে উল্লেখ করা হয়। বাংলাদেশের মাদ্রাসাগুলোতে শিক্ষক কর্তৃক ক্রমবর্ধমান ছাত্রদের উপর যৌন নির্যাতনের ঘটনার প্রেক্ষিতে এ নোটিশ পাঠান বলে জানান হুমায়ন কবির পল্লব।

[৪] নোটিশে বলা হয়, বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে পুরুষের সঙ্গে পুরুষের যৌনসঙ্গমকে ধর্ষণ হিসাবে বিবেচনা করা হয়না। ফলে এ ধরনের যৌনসঙ্গমের শাস্তি অনেক কম থাকায় মাদ্রাসার শিক্ষকরা এ সুযোগটি কাজে লাগাচ্ছে। ধর্ষণসহ বিভিন্ন যৌন নির্যাতনের শিকার অনেক ছাত্র মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়ছে। সাম্প্রতিক সময়ে এসব ঘটনা আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

[৫] আলিয়া ও কওমি মাদ্রাসায় প্রয়োাজনীয় সংখ্যক মহিলা শিক্ষক নিয়োগ করে বিশেষত শিশুদেরকে মহিলা শিক্ষক দ্বারা পাঠদানের ব্যবস্থা গ্রহন করতে বলা হয়েছে নোটিশে। ব্যারিস্টার পল্লব বলেন, মাদ্রাসাগুলোতে অধিকাংশ শিক্ষার্থী এতিম এবং সমাজের সুবিধা বঞ্চিত শিশু-কিশোর। এ কারণে নির্যাতনের ঘটনা ঘটলেও সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয়ভাবে তাদের পাশে দাড়ানোর মত তেমন কাউকে দেখা যায় না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত