প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লা লিগা সভাপতি বললেন, আর্থিক দিক দিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ এগিয়ে

স্পোর্টস ডেস্ক: [২] ফুটবল বিশ্বে ঘরোয়া ফুটবলের মধ্যে কোন লিগ সবচেয়ে সেরা, ইংল্যান্ডের ইংলিশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ নাকি স্পেনের লা লিগা? এই প্রশ্নের উত্তর বেশ জটিল। কিন্তু লা লিগা সভাপতি হাভিয়ের তেবাস বললেন, অন্তত আর্থিক দিক দিয়ে এখনও ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চেয়ে অনেকটা পিছিয়ে লা লিগা। এই পার্থক্যটা দূর করাই যে তার মূল লক্ষ্য, সেটাও মনে করিয়ে দিলেন তিনি।

[৩] একটা সময় লা লিগার চেয়ে প্রচার ও প্রসারে যোজন এগিয়ে ছিল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ। মেসি-রোনালদো আর সঙ্গে জমজমাট এল ক্লাসিকোতে সেই ব্যবধান অনেকটাই কমেছে। তবে আর্থিক দিক দিয়ে যে প্রিমিয়ার লিগ অনেকটাই এগিয়ে। তেবাসের ইচ্ছা সেই ব্যবধানটা ঘুঁচিয়ে ফেলবেন দ্রুত। তিনি বলেন, আমরা মঙ্গোলিয়া থেকে গ্রিনল্যান্ড পর্যন্ত লা লিগাকে ছড়িয়ে দিয়েছি। এর মানে এই না সেখান থেকে আমাদের খুব লাভ হচ্ছে। কিন্তু এটার মানে বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকে এখন লা লিগা দেখা যাচ্ছে।

[৪] তবে এখনো প্রিমিয়ার লিগের সাথে ব্যবধান আছে বেশ, সেটা মেনে নিলেন তেবাস। তিনি বললেন, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে প্রিমিয়ার লিগকে ছাড়িয়ে যাওয়া। এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমাদের অফিস আছে, শত শত লোক আমাদের সাথে কাজ করছে। সবচেয়ে ঘনবসতিপুর্ণ দেশে আরও প্রচারের জন্য আমাদের স্থানীয় সমর্থক দরকার।

[৫] ২০১৩ সালে লা লিগা সভাপতির দায়িত্ব নিয়েছিলেন তেবাস। তিনি বলছেন, আর্থিক দিক দিয়ে অনেকটাই শক্তিশালী করতে পেরেছেন স্পেনের ঘরোয়া লিগকে। সাত বছরে লা লিগার সম্পদ আমরা অনেকটাই বাড়িয়েছি। ২০১৩ সালে দায়িত্ব নেওয়ার সময় স্পেনের ঘরোয়া লিগের স্বত্বমূল্য ছিল ২৩৬ মিলিয়ন ইউরো, এখন সেটা ৮০০ মিলিয়ন ইউরো। আন্তর্জাতিক স্বত্ব ৫৫০ মিলিয়ন ইউরো থেকে হয়েছে ১.২ বিলিয়ন ইউরো।

[৬] ইংল্যান্ডের তুলনায় স্পেনের জনসংখ্যায় পিছিয়ে থাকাও লা লিগার কম প্রসারের কারণ হিসেবে মনে করছেন লা লিগা সভাপতি। আমাদের জনসংখ্যা চার কোটির মতো, যেখানে ইংল্যান্ডে এটা সাত কোটি। এখানেও আমরা পিছিয়ে গেছি কিছুটা। এশিয়ার মতো জনসংখ্যাবহুল দেশে এখনো আমাদের কাজ করার অনেক সুযোগ আছে। মার্কা/ গোল ডটকম

সর্বাধিক পঠিত