প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যর্থতার জন্য ক্ষমা চাইলেন কিম অতঃপর নিজে কাঁদলেন, দেশবাসীকেও কাঁদালেন

ডেস্ক রিপোর্ট : জীবনমানের উন্নতি করতে না পারায় দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চেয়েছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। তার অশ্রুসিক্ত বক্তব্য কাঁদিয়েছে দেশের মানুষকে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, শনিবার উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ওয়ার্কার্স পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনে সামরিক বাহিনীর কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন দেশটির নেতা কিম জং আন।

সাম্প্রতিক বেশ কয়েকটি ধ্বংসাত্মক ঝড় ও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় ‘অনন্য’ ভূমিকা রাখায় সৈন্যদের ধন্যবাদ জানান কিম।

বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনা মহামারিতে উত্তর কোরিয়ার কেউ আক্রান্ত না হওয়ায় ভাষণে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। যদিও আন্তর্জাতিক মহল উত্তর কোরিয়ার ‘কেউ আক্রান্ত না হওয়ার’ দাবি সন্দেহ প্রকাশ করে আসছে।

করোনা ঠেকাতে আরোপ করা বিধিনিষেধের কারণে প্রভাব, আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা এবং বেশ কয়েকটি ঘূর্ণিঝড়ের কারণে জনগণের অবস্থার উন্নতিতে সরকারের দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করা যায়নি বলে দায় স্বীকার করেন কিম।

তিনি বলেন, আমাদের জনগণ যে কঠিন জীবনযাপন করছে, সেখান থেকে তাদের বের করে আনতে আমার আন্তরিকতা ও চেষ্টা যথেষ্ট ছিল না।

উত্তর কোরীয় নেতা বলেন, এরপরও জনগণ সবসময় আমার উপর সম্পূর্ণ আস্থা রেখেছে, আমাকে বিশ্বাস করেছে। আমার পছন্দ ও সিদ্ধান্তে তারা সমর্থন দিয়েছে।”

রাষ্ট্রীয় চ্যানেলে প্রচারিত ভিডিওতে এসব কথা বলার সময় কিমকে অশ্রুসিক্ত দেখা গেছে। এক পর্যায়ে তার কথাও আটকে গিয়েছিল বলে ভিডিওতে মনে হয়েছে।

শনিবার কুচকাওয়াজে উপস্থিত সেনা কর্মকর্তা ও সৈন্যদেরও কাঁদতে দেখা গেছে। অনেকের চোখ দিয়ে পানি গড়িয়ে পড়ছিল।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত