প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সেই মরিনহোই এখন ক্যাসিয়াসের বন্ধু

স্পোর্টস ডেস্ক : [২] রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসের অন্যতম সেরা গোলরক্ষক ইকের ক্যাসিয়াস। কিন্তু সেই গোলরক্ষককেই বেঞ্চে বসিয়ে রাখার দুঃসাহস করেছিলেন জোসে মরিনহো। তাও বেশ কিছু ম্যাচে। যে কারণে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে চোখে চোখ রেখে খুব একটা কথা বলা হয়নি তাদের। তবে সময়ের স্রোতে তাদের সম্পর্কটা জোড়া লেগেছে।

[৩] মরিনহোর সঙ্গে ক্যাসিয়াসের দ্বন্দ্বটা শুরু হয় একটি ম্যাচে তাকে বাদ দেওয়াকে কেন্দ্র করে। একটি ম্যাচে ক্যাসিয়াসের ভুলকে কেন্দ্র করে পরের ম্যাচে তাকে বেঞ্চে বসিয়ে রাখেন এ পর্তুগিজ কোচ। দিয়েগো লোপেজে আস্থা রাখেন মরিনহো। যেটা স্বাভাবিকভাবেই পছন্দ হয়নি ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা গোলরক্ষক ক্যাসিয়াসের। দুই জনের মধ্যে দ্বন্দ্ব বাড়ে। ক্লাবে থাকাকালীন সময়ে তা আর স্বাভাবিক হয়নি।

[৪] গত বছরের ১ মে অনুশীলনের সময় হঠাৎ হার্ট অ্যাটাক হয় ক্যাসিয়াসের। সে কারণে আর মাঠে ফিরতে পারেননি এ স্প্যানিশ কিংবদন্তি। পরে অবসরই নিয়ে ফেলেন। অসুস্থ হওয়ার পর প্রথম দিকে তার খবর নিয়েছেন তাদের মধ্যেই ছিলেন মরিনহো। সম্প্রতি স্পোর্টসভিত্তিক ওয়েবসাইট ইএসপিএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছেন খোদ ক্যাসিয়াসই।

[৪] তাদের মধ্যে যে বন্ধুত্ব হয়েছে তার ইঙ্গিত দিয়ে ক্যাসিয়াস তার সাক্ষাৎকারের এক পর্যায়ে বলেছেন, আপনি হয়তো এমন কারো কাছে বন্ধু হতে পারেন যা আগে কখনোই ছিল না। উদাহরণ হিসেবে বলি, অনেক লোকই জানে না আমার অসুস্থতার সংবাদ শুনে সাবেক ম্যানেজার মরিনহোই সবার প্রথম উদ্বিগ্ন হয়ে আমাকে কল দিয়ে জানতে চেয়েছিলেন আমার কি হয়েছে? আমি কেমন আছি।

[৫] ক্যাসিয়াসের যে ধরণের হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল তাতে সাধারণ বেঁচে ফেরাই বেশ কঠিন। তবে ভাগ্য সঙ্গে ছিল এ গোলরক্ষকের। নিজেকে তাই সৌভাগ্যবান বলছেন এ তারকা, ‘আমি ভেবেছিলাম আমি অবশ্যই সেদিনই মারা যাচ্ছি। সে পরিস্থিতি আমাকে সবকিছু পুনর্বিবেচনা করতে বাধ্য করেছিল। আমি একজন আশীর্বাদ পাওয়া ব্যক্তি। আমি যদি ফুটবল চালিয়ে যেতে পারি তবে আমি তা করবো।

[৬] উল্লেখ্য, গ্লাভস জোড়া খুলে রাখলেও ফুটবলের সঙ্গেই আছেন ক্যাসিয়াস। রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের পরামর্শক হিসেবে যোগ দিয়েছেন তিনি। এক সময় এ ভূমিকায় ছিলেন বর্তমান কোচ জিনেদিন জিদানও।- ইএসপিএন/ ডেইলি স্টার

সর্বাধিক পঠিত