প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুই শিশু মিলে এক শিশুকে হত্যা, অভিভাবক কারাগারে

ডেস্ক রিপোর্ট: নিখোঁজের একদিন পর তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র হৃদয় মন্ডল হত্যা মামলায় দোষ স্বীকার করা দুই শিশুকে সমাজসেবার প্রবেশন অফিসার, তাদের আইনজীবী ও অভিভাবকের জিম্মায় মুক্তি দিয়েছেন আদালত। ঘটনায় সাফিয়া খাতুন নামে এক নারীকে তথ্য গোপনের অভিযোগে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতার ওই নারী অভিযুক্ত এক শিশুর মা। তার বিরুদ্ধে ঘটনার তথ্য গোপন করার অভিযোগ আনা হয়। মূলত এই অভিযোগেই তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

অভিযুক্ত দুই শিশু ও এক শিশুর মা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। একটি খেলনা নিয়ে ঝগড়ার হয় তাদের। এ ঘটনায় হৃদয় মন্ডল নামে এক শিশুকে মেরে ফেলে বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে তারা। জানিয়েছেন সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর্জা সালাউদ্দীন।

শুক্রবার নিখোঁজের একদিন পর সাতক্ষীরার সদর উপজেলার ঝিটকা গ্রামে বাড়ির পাশে একটি ধানক্ষেত থেকে তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্র হৃদয় মন্ডলের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে নিহত শিশুর প্রতিবেশী এক নারী ও দুই শিশুসহ ৫ জনকে আটক করা হয়। ওই রাতেই দুই শিশু হত্যাকান্ডের কথা অকপটে স্বীকার করে।

তবে এক শিশুর মা ঘটনার পরদিন ছেলের কাছ থেকে হত্যার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারেন। তবে তিনি এবিষয়ে পুলিশকে কিছুই জানাননি। এতে তাকে তথ্য গোপনের দায়ে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত