প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুন্দরবন ছেড়ে বাগেরহাট লোকালয়ে বাঘ, আতঙ্কে মানুষ

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জ সংলগ্ন লোকালয় পশ্চিম রাজাপুর গ্রামে বাঘ আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। গতকাল সকালে গ্রামের প্রায় এক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে রয়েল বেঙ্গল টাইগারের (বাঘ) পায়ের অসংখ্য তাজা ছাপ দেখতে পেয়ে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এলাকাবাসী ধারণা করছে বুধবার রাতে দুটি বাঘ সুন্দরবন ছেড়ে লোকালয়ে ঢুকেছে। তবে সুন্দরবন বিভাগ জানিয়েছে, বুধবার রাতে দুটি নয়, একটি বাঘ লোকালয়ে ঢুকে ভোর রাতে আবারও সুন্দরবনে ফিরে গেছে। গ্রামবাসীকে সতর্ক থাকতে মাইকিং করা হয়েছে। পুনরায় বাঘ যাতে না আসতে পারে সেজন্য সুন্দরবন বিভাগ, ভিলেজ টাইগার রেসপন্স টিম (ভিটিআরটি) ও কমিউনিটি প্যাট্রোলিং গ্রুপের (সিপিজি) সদস্যদের গ্রামে পাহারা দিতে বলা হয়েছে। বাংলাদেশ প্রতিদিন

সুন্দরবন ছেড়ে লোকালয়ে বাঘ আসার খবর পেয়ে শরণখোলা থানার ওসি মো. সাইদুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এলাকাবাসী জানায়, শরণখোলা উপজেলার আওতাধীন বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর ফরেস্ট স্টেশনের কলমতেজী টহল ফাঁড়ি-সংলগ্ন বন থেকে ভোল নদী সাঁতরে ওয়াপদার রাস্তা পার হয়ে বাঘ গ্রামে ঢোকে। এসব পায়ের ছাপ দুই ধরনের দেখে মনে হচ্ছে দুটি বাঘ এসেছিল। গ্রামের প্রায় এক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বাঘ বিচরণ করেছে। বাঘ সুন্দরবনে ফিরে গেছে না গ্রামের ঝোপঝাড়ে লুকিয়ে আছে তা নিশ্চিত হতে পারেনি এলাকাবাসী। মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তবে গ্রামের কারও কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। এই অবস্থায় গ্রামবাসীকে সতর্ক থাকার পাশাপাশি শিশুরা যাতে বাইরে না যায় সেজন্য অভিভাবকদের নির্দেশনা দিয়েছে সুন্দরবন বিভাগ।

শরণখোলার সাইথখালী ইউপি সদস্য তালুকদার হুমায়ুন করিম সুমন জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে এমাদুল হাওলাদার (৩৮) নামের এক কৃষক প্রথমে তার বাড়ির সামনে বাঘের পায়ের তাজা ছাপ দেখতে পান। তার মাধ্যমে জানতে পেরে আশপাশ এলাকায় খোঁজ নিয়ে এক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে দুই ধরনের বাঘের পায়ের অসংখ্য ছাপ দেখতে পায় স্থানীয়রা। টগরাবাড়ী গ্রামের শামছু হাওলাদারের বাড়ি, আলকাজ হাওলাদারের বাড়ি ও রিয়ার হাওলাদারের বাড়ির সামনে বাঘের পায়ের ছাপ রয়েছে। এ ছাড়া এলাকার ধানখেতেও বাঘের পায়ের অসংখ্য ছাপ দেখা গেছে।

সর্বাধিক পঠিত