প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনে জড়িত ৯ জন চিহ্নিত, গ্রেপ্তার ৪

ইসমাঈল ইমু : [২] নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে এক গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণচেষ্টার পর ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় ৯ জন চিহ্নিত করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সোমবার দুপুর পর্যন্ত জড়িতদের মধ্যে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

[৩] নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) আলমগীর হোসেন জানান, গতকাল ৪ অক্টোবর রাতে নির্যাতন ও প্রযুক্তি আইনে দু’টি মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী সেই নারী। মামলায় সাতজনের নাম ও অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়। তবে পুলিশ এ ঘটনায় নয় জনকে চিহ্নিত করেছে।

[৪] নির্যাতনে জড়িতরা হলেন- দেলোয়ার, বাদল, আবদুর রহিম, রহমতউল্লাহ, আবুল কালাম, ইসরাফিল, সাজু, সামশুদ্দিন সুমন, আবদুর রব চৌধুরী ওরফে লম্বা চৌধুরী। এদের মধ্যে দেলোয়ার ও বাদল র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হয়েছে। আর আবদুর রহিম ও রহমত উল্লাকে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ গ্রেফতার করে।

[৫] এর আগে, গত রোববার দুপুরে ওই গৃহবধূকে নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে মাসখানেক আগে এ ঘটনা ঘটে।

[৬] ভিডিওতে দেখা যায়, ওই গৃহবধূকে সম্পূর্ণ বিবস্ত্র করে তার মুখমণ্ডলে উপুর্যপুরি লাথি মারছে দুর্বৃত্তরা। ভিডিওধারণের সময় গৃহবধূ বখাটেদের বহুবার পায়ে ধরে কাকুতি-মিনতি করেছেন। তিনি দুর্বৃত্তদের বারবার বাবা-বাবা বলে ডাকলেও তারা ভিডিওধারণ বন্ধ রাখেনি। জঘন্য ও নারকীয় কায়দায় ওই গৃহবধূকে তারা নির্যাতন করতে থাকে। শুধু তাই নয়, ধারণ করা ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়া হবে এবং লাইভ করতে হবে বলেও ওই সময় একে অন্যকে জানায় নির্যাতকরা।

[৭] নির্যাতনের শিকার ওই নারীর বিয়ে হয় তিন বছর আগে। পরে স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করলে তিনি বাবার বাড়িতে থাকতেন। স্বামীর সঙ্গে অনেকদিন হলো যোগাযোগও নেই তার। এর মধ্যে গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে ওই নারীর স্বামী তার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন।

[৮] পরে রাত ১০টার দিকে দেলোয়ার তার কথিত বাহিনী নিয়ে ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করে, তার বিরুদ্ধে অনৈতিক কাজ করার অভিযোগ এনে মারধর ও ধর্ষণচেষ্টা চালায়। এক পর্যায়ে তাকে সম্পূর্ণ বিবস্ত্র করে ওই অবস্থার ভিডিও ধারণ করে পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়।

 

সর্বাধিক পঠিত