প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আমার এ বিজয় ভোটারদের বিজয়, সমালোচকদের পরাজয় : সালাউদ্দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক : [২] টানা তিনবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি ছিলেন কাজি সালাউদ্দিন। চতুর্থবার কেনো তিনি নির্বাচন করবে? এই প্রশ্নে সরব ছিলো বিরোধীরা। নানা সমালোচনা বিদ্ধ করেছে সালাউদ্দিনকে। এবার ভোটাররাই সভাপতি নির্বাচিত করে তার বিরুদ্ধে চলা এতদিনের সমালোচনাগুলোর জবাব ভোটাররাই দিয়েছেন বলে মনে করেন সালাউদ্দিন।

[৩] শনিবার ভোট ও ফলাফল শেষে মধ্যরাতে সংবাদ সম্মেলনে আসেন কাজী সালাউদ্দিন। নির্বাচনে তার নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত পরিষদেরই ছিল জয়-জয়কার। ২১ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটির ১৪জনই তার পরিষদের।

[৪] নির্বাচিত হওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় কাজী সালাউদ্দিন বলেন, আমাদের বিজয়টা ভোটারদের বিজয়। অনেকে অনেক কথা বলেছে নির্বাচনের আগে। উত্তরটা দেওয়ার ছিল ভোটারদের। ভোটাররা উত্তর দিয়েছেন। আমি ভোটারদের আমার এবং আমার প্যানেলের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই।

[৫] দেশের ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা তারকা সালাউদ্দিন জানান, তিনি আত্মবিশ্বাসী ছিলেন নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে। ফুটবলের সঙ্গে সরাসরি জড়িত মানুষরা তার পক্ষে ছিলেন বলেই এই আত্মবিশ্বাস পেয়েছেন বলে জানান।

[৬] কাজী সালাউদ্দিন বলেন, আমরা ফুটবল করছি, ১২ বছরে কোনো লিগ, খেলা মিস হয়নি। এবং এটা করি বলেই খেলোয়াড়রা এবং কাউন্সিলরা যারা ফুটবলের সঙ্গে সরাসরি জড়িত, তারাই আমাকে সাপোর্ট করে। এটাই একমাত্র কারণ।
আজকে সব খেলোয়াড়রা, কারেন্ট প্লেয়াররা আমাকে উইশ করতে এসেছে। এখন যারা খেলছে তারা, অতীতের খেলোয়াড়রা না। অতীতে তো আমি-সালাম বা আমরা সাবেকেরা খেলেছি। আজকের খেলোয়াড়রা যখন আমাকে উইশ করতে এসেছে, তখনই আমি বুঝেছি হয়তো আমি কিছু ঠিক কাজ করেছি, এ জন্য এসেছে।

[৭] তিনি আরো বলেন, মিডিয়াতে অনেক কথা শুনেছি। অনেকে বলেছে আমার ১০ ভোট নেই, ১২ ভোট নেই। যত বছরই যাচ্ছে আমার ভোট কিন্তু বাড়ছে। ২০০৮ সালে আমি ৮০ ভোটে পাশ করেছি। ২০১৬ সালে ৮৩ ভোট (২০১২ সালে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন)। ফুটবল যারা করে তাদের কাছে তো আমি জনপ্রিয় আছি। তার পরিষদের বাইরে থেকে যারা নির্বাচিত হয়েছেন, তাদেরকে নিয়ে এক সঙ্গে কাজ করার কথাও বলেছেন সালাউদ্দিন।

সর্বাধিক পঠিত