প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মোহম্মদ শরীফ: আমাদের আমলারা ‘সাদা’দেখলে এখনো নমো-নমো করেন!

মোহম্মদ শরীফ: ৪৭ সালে পূর্ববঙ্গ থেকে বিতাড়িত বাঙ্গালদের ভারতের ১৮টি প্রদেশে স্থান সংকুুলন করা হয়েছিলো। নিজস্ব কোনো পছন্দ-অপছন্দের বিষয় ছিল না। আমরা যখন একাত্তরে ভারতে গিয়েছিলাম সাময়িকভাবে তখনো তখনকার ভারতীয় সরকার যে ব্যবস্থা করেছিলেন সেইমতোই আশ্রয় গ্রহণ করেছিলাম। অতিথিরও কোনো শর্ত থাকা অভদ্রতার সামিল। গৃহস্থ্য তার নিজস্ব সীমাবদ্ধতায় যে ব্যবস্থ’া করে থাকেন তাই অতিথি আর্শীবাদ হিসেবে গ্রহন করেন। গা জোয়ারিপনা সন্ত্রাসের সামিল। অতিথির পর্যায়ে পড়ে না।

রোহিঙ্গারাও তাই করছেন। করতে পারছেন এনজিও মারফত বহির্বিশ্বে¦র নাক গলানোতে। শুরুতেই তা সামাল দেওয়া উচিত যা অন্যান্য দেশ করে থাকেন। আমাদের আমলারা ‘সাদা’দেখলে এখনও নমো-নমো করেন। শিরদাঁড়া সোজা হয়নি। কেন? পূর্বপুরুষের কেরানী মানসিকতা? ভিন্নভাবে যদি বিশ্লেষণ করি তবে শরণার্থীদের বেলায়ও নাগরিকসম অধিকারকে অতি উদারতা হিসাবে ধরে নিলে যে কথিত ‘মানবধিকার’ওয়ালাদের মুখে চুনকালি লেপটে যায় যারা কথায় কথায় বাংলাদেশের নাগরিকদেরই নাকি ‘গণতন্ত্র-বাক-স্বাধীনতা’ নেই বলে গলাবাজি করে বেড়ান যেকোনো ইস্যু উঠলেই। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত