প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ইউএনওকে হত্যাচেষ্টা: প্রধান আসামি আসাদুল ৭ দিনের রিমান্ডে

দিনাজপুর প্রতিনিধি: [২] জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি আসাদুল হকের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

[৩] রোববার (৬ সেপ্টেম্বর) তাকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনিরুজ্জামান এর আদালতে তোলা হয়। তদন্তকারী কর্মকর্তা ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

[৪] এদিকে শনিবার দুপুরে শ্বাসকষ্টের কারণে আসাদুলকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছিলো। তার আগেরদিন (শুক্রবার) সন্ধ্যা ৭টায় র‌্যাবের (র‌্যাব-১৩) সংবাদ সম্মেলনে বাকি দুই আসামিকে হাজির করা হলেও আসাদুল অনুপস্থিত ছিলেন।

[৫] এদিকে ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীকে সরকারি বাস ভবনে ঢুকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা চেষ্টার মামলাটি গোয়েন্দা সংস্থা-ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি ওসি ইমাম জাফর। মামলার বাদি ইউএনওর বড় ভাই শেখ আরিফ হোসেন।

[৬] আসামিরা হলেন- রংমিস্ত্রী নবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমার। এ দুই আসামিকে আগেই ৭ দিন করে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। প্রধান আসামি আসাদুল হক রংপুর মেডিকেলে চিকিৎসাধীন থাকায় সন্ধ্যায় থাকে থানায় হস্তান্তর করা হয়। আজ তাকে আদালতে হাজির করা হলে তারও ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

[৭] প্রসঙ্গত, গত বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে দুর্বৃত্তরা ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ চত্বরে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনে প্রবেশ করে। হত্যার উদ্দেশ্যে তারা ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীকে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে গুরুতর জখম করে।

[৮] পরে আহত বাবা-মেয়েকে প্রথমে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে ইউএনও ওয়াহিদাকে বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হয়। বর্তমানে ঢাকার আগারগাঁওয়ে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার বাবা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত