প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কোভিড-১৯ আতঙ্কে কার্বন মনোক্সাইড গ্যাস দিয়ে বিপুল সংখ্যক মিঙ্ক হত্যা করেছে নেদারল্যান্ডস

ইয়াসিন আরাফাত : [২] ৫ জুন থেকে এ পর্যন্ত ছ’লাখ থেকে আট লাখ মিঙ্ক হত্যা করেছে দেশটি। এদিকে ১১ হাজার মিঙ্ককে হত্যা করেছে ডেনমার্কও। নির্মম এই সিদ্ধান্তের নেপথ্যে কোভিড-১৯ আতঙ্ক। এখনও পর্যন্ত নিদৃষ্ট কোনও প্রমাণ না থাকলেও, আক্রান্ত মিঙ্ক থেকে মানুষও আক্রান্ত হতে পারে, এমন সন্দেহের বশে এই স্তন্যপায়ী প্রাণী নিধন চালিয়েছে এই দুই দেশ। পশম তৈরির জন্য নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক ছাড়াও এই প্রাণীর কদর রয়েছে চিন, পোলান্ডেও। দ্যা হেগ, দ্যা গার্ডিয়ান

[৩] নেদার‍ল্যান্ডসে মিঙ্কদের নিয়ে আতঙ্ক শুরু হয় গত এপ্রিলে। শুরুতে দু’টি খামারে মিঙ্কের কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে আসে। সংক্রমণ ক্রমশ বাড়তেই থাকে। একটি খামারের দু’জন কর্মীও আক্রান্ত হন। এই নিয়ে সরগরম হয়ে ওঠে নেদারল্যান্ডসের পার্লামেন্টও। সমস্ত খামার বন্ধ করে দেয়ার পক্ষে প্রশ্ন তোলেন জনপ্রতিনিধিরা। এমনিতেই পশুপ্রেমীদের চাপে ২০২৪ সালের মধ্যে মিঙ্কের খামারগুলি বন্ধ করে দয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল নেদারল্যান্ডস। করোনা আতঙ্কে আগেই সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর দাবি ওঠে।

[৪] জানা যায়, ৫ জুন থেকে মিঙ্ক-নিধন শুরু হয়। যা এখন আট লাখের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকবার এই নিয়ে প্রতিবাদ মিছিল দেখেছে নেদারল্যান্ডসের বিভিন্ন শহর।

[৫] তবে আক্রান্ত প্রাণী থেকে কোনও মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে কি না, তা এখনও স্পষ্ট নয়। যাকে বিজ্ঞানের পরিভাষায় বলা হয়, রিভার্স অ্যানথ্রোপোনোসিস। মিঙ্কের ক্ষেত্রে কিছু প্রমাণ পেয়েছেন বলে দাবি করেছেন সেখানকার বিজ্ঞানীরা। মিঙ্ক ও খামারকর্মীর শরীরের নমুনায় ভাইরাসের উপর পরীক্ষা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে তারা।

সর্বাধিক পঠিত