প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লকডাউন নিয়ে এখনো ধোঁয়াশার মধ্যেই জনগণ

সাজিয়া আক্তার : [২] গত ১৫ জুন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশে বলা হয় নতুন করোনাভাইরাস সংক্রমণ বিবেচনায় লাল হচ্ছে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ, হলুদ হচ্ছে মাঝারি ঝুঁকিপূর্ণ। এই দুই এলাকায় সাধারণ ছুটি থাকবে। কিন্তু ওইদিন বিকেলেই আবার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে বলা হয়েছে লাল জোনে ছুটি থাকবে। যেমন ১৬ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ছুটি চলার কথা। কিন্তু ঢাকা শহরের লোকজনের চলাচল দেখলে বোঝার উপায় নেই কোন এলাকা লাল জোন। কোন এলাকা সাধারণ ছুটির আওতায় পড়েছে। চ্যানেল আই

[৩] গত ১৫ মে পাবলিক হেলথ অ্যাডভাইজার কমিটি করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ঢাকাসহ দেশের বড় বড় শহর এলাকায় লকডাউন করার পরামর্শ দেয়। সেই পরামর্শ অনুযায়ী প্রায় এক মাস পর ১১ জুন লকডাউন নিয়ে কাজ করার জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে প্রধান করে ১৩ সদস্যের কেন্দ্রীয় কারিগরি গ্রুপ করা হয়েছে। তারা রাজধানীর ৪৫টি এলাকাকে লাল জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে।

[৫] প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। এই সংখ্যা নিয়েও আবার কারো কারো ভেতর মতভেদ রয়েছে। কেউ কেউ মনে করে এ সংখ্যা দ্বিগুনেরও বেশি। কারণ অনেক মানুষ করোনা পরীক্ষা করতে এসে ফিরে যাচ্ছে। অনেক জায়গায় ঠিক কতজন আক্রান্ত হচ্ছে সেই হিসেব রাখারও লোকের অভাব রয়েছে। সব মিলিয়ে মানুষের ভেতর আতঙ্ক বিরাজ করছে।

[৬] লকডাউন কতটা জরুরি সেটা নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলের ভেতর আগ্রহের অভাব দেখা যাচ্ছে। তবে সচেতন মানুষেরা মনে করেন দ্রুত রাজধানীতে লকডাউন করে দেয়া দরকার। লকডাউন দরকার দেশের অনেক অঞ্চলেই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত