প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কোভিড-১৯ ঠেকাতে ভারতে সরকারি অফিস ও হাসপাতালে এসি ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু নির্দেশনা জারি

ইকবাল খান: [২] ভারতে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এসি মেশিনের হাওয়ার মাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনা। এ বিষয়টি আমলে নিয়ে চতুর্থ দফা লকডাউন ধাপে ধাপে শিথিল করার আগে ভারত সরকার সংশ্লিষ্ট দফতরকে একটি কমিটি করার নির্দেশ দেয় বলে সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে আনন্দবাজার জানিয়েছে। পরবর্তীতে ওই কমিটির দেয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে সরকারি অফিসে এসি, এয়ারকুলার চালানোর নতুন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।

[৩] রিপোর্টে বলা হয়েছে, সমস্ত এসি মেশিনের তাপমাত্রা ২৪-৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রাখতে হবে। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ হতে হবে ৪০ থেকে ৭০ শতাংশ। এসি মেশিন চালানোর আগে বা পরে ওই ঘরে জানলা-দরজা খোলা রেখে খোলা হাওয়া চলাচলের ব্যবস্থা করতে হবে। এসি বন্ধ করার পর ঘর থেকে সমস্ত বাতাস এগজস্ট পাখার সাহায্যে বের করে দিতে হবে। এতে করোনা সংক্রমণের প্রকোপ কমবে। যদি সম্ভব হয় সরকারি অফিসে ক্রস ভেন্টিলেশনের ব্যবস্থা করতে হবে। এসি’র ইনডোর ইউনিট বারবার স্যানিটাইজড করে ‘এয়ার স্যানিটাইজেশন’ করাতে হবে।

[৪] কমিটির মতে, ২৪ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় এসি’র সঙ্গে ঘরে পাখা চালিয়ে রাখার কথাও জানিয়েছে তারা। প্রয়োজনে দরজা বা জানালা সামান্য খোলা রেখে এসি চালানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তবে সেন্ট্রাল এসি ব্যবস্থা রয়েছে এমন অফিস, মল, হাসপাতাল খুবই বিপজ্জনক বলে মত দিয়েছে ভারতের পূর্ত বিভাগ। এমন অফিস বা হাসপাতালে ঘণ্টায় ১২ বার বাতাস বদল বা (১২ এয়ার চেঞ্জেস পার আওয়ার-এসিপিএইচ) প্রযুক্তি ব্যবহার করতে বলেছে তারা। সেই সঙ্গে এগজস্ট পাখা ব্যবহার করে বদ্ধ বাতাস বের করে দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত