প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাংলাদেশের আত্মমর্যাদা ক্ষুন্ন হবে, তাই পাকিস্তানের মতো সুদ মওকুফের আবেদন করেনি জি ২০এর কাছে

বিশ্বজিৎ দত্ত :  [২] জি ২০  ‍ভূক্ত দেশগুলো বিশ্বের দরিদ্র ৩০ টি দেশের ঋণের সুদ মওকুফ করেছে। মোট ৭৬টি দেশ ঋণ মওকুফের জন্য আবেদন করেছিল। শুধু অতি দরিদ্রদের সুদ মওকুফ করা হয়। এই অতি দরিদ্রদের মধ্যে পাকিস্তানও রয়েছে। সুত্র; জিও টিভি

[৩] পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সেই দেশের সংবাদ মাধ্যমে বলেছেন, এই মওকুফের ফলে পাকিস্তান প্রায় আড়াই বিরিয়ন ডলার সুদ মওকুফ পেয়েছে। যা আমাদের করোনা পরিস্থিতিতে অর্থনীতি উদ্ধারে সহায়তা করবে।

[৪] বাংলাদেশ কেন সুদ মওকুফের আবেদন করেনি এ বিষয়ে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শাহাবুদ্দীন পাটোয়ারি জানান, বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক একটা ইজ্জত আছে (ইমেজ)। ঋণ নিয়ে কখনো খেলাপি হয়নি। অতিরিক্ত বৈদেশিক ঋণের বোঝাও নেই। করোনায় অর্থনীতি কিছুটা শ্লথ হলেও একবারে বসে যায়নি বাংলাদেশ। তা ছাড়া জি ২০ তাদের ঋণের সুদ ১ বছর পিছিয়েছে। পরে কিন্তু তা দিতে হবে। অর্থাৎ এক বছর সুদ দিতে হবে না। ভবিষ্যতের ইমেজের কথা চিন্তা করে আমরা ঋণ মওকুফের আবেদন করিনি।

[৫]চলতি বছর বাজেটে (২০১৯-২০) মোট বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ ধরা হয়েছে ৬৩ হাজার ৮৪৮ কোটি টাকা। বাংলাদেশ গত বাজেটে বৈদেশিক ঋণের সুদ পরিশোধ করেছে ৪ হাজার ২৭৩ কোটি টাকা। চলতি বাজেটের ১২ শতাংশ অর্থায়নের উৎস্য বৈদেশিক ঋণ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত