প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ইউনাইটেড হাসপাতালের অগিকাণ্ডের ঘটনা তদন্ত করছে ফায়ার সার্ভিস

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : [২] বুধবার রাতেই ৭ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স।

[৩] ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন জানান, আগামী সাত কার্যদিবস শেষে তদন্ত কমিটিকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। ইউনাইটেড হাসপাতালের মূল ভবনের পাশে টেম্পোরারি মেটেরিয়াল দিয়ে করোনা রোগীদের জন্য আইসোলেশন ওয়ার্ড লৈতরি করা হয়েছিল। সেখানে কোনো অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র ছিল না। তবে মূল ভবনে অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র ছিল। সেই অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র ব্যবহার করার সুযোগ পাইনি হাসপাতাল লোকজন।

[৪] তিনি আরও জানান, সেই আইসোলেশন ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে চারটি রুম আছে। চারটি রুমের একটি রুমে এসি দুমড়ে-মুচড়ে অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। চারটি রুম অগ্নিকাণ্ডের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক গোলযোগের কারণে সেটি বিস্ফোরণ হয়ে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এতে আইসোলেশনে থাকা করোনা সাসপেক্ট ৫ জন রোগী মারা যায়। তবে নিহত পাঁচজন যে করোনা সাসপেক্ট রোগী ছিল সেটা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদের জানিয়েছে।

[৫] সম্প্রতি ইউনাইটেড হাসপাতালে কোভিড-১৯ আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য আলাদাভবে আইসোলেশন ইউনিট খোলার অনুমতি দেয় স্বাস্থ্য অধিদফতর।

[৬] এর আগে বুধবার রাত ৯টা ৫৫ মিনিটে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। রাত ১০টা ১০ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। পরে ওই আইসোলেশন ইউনিট থেকে পাঁচটি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

[৭]অগ্নিকান্ডে নিহতরা হলেন- রিয়াজুল আলম (৪৫), খোদেজা বেগম (৭০), ভেরুন এন্থনি পল (৭৪), মো. মনির হোসেন (৭৫) ও মাহাবুব এলাহী চৌধুরী (৫০)। তারা সবাই করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি ছিলেন। এদিকে, এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দুঃখ প্রকাশ করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত