প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]খাদ্য সহায়তার দাবিতে কমলগঞ্জের শমশেরনগরে পরিবহন শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ

স্বপন দেব, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : [২] করোনাভাইরাস সংক্রমণকালে যানবাহন চালাতে না পেরে চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন মৌলভীবাজাররে কমলগঞ্জ উপজেলার পরিবহন শ্রমিক ও চালকরা। এসময়ে খাদ্য সহায়তা চেয়ে মাসাধিকাল আগে চালকদের তালিকাসহকারে লিখিত আবেদন করেও কোন সহযোগিতা পাননি বলে তাদের অভিযোগ। অবশেষে খাদ্য সহায়তার দাবিতে রোববার (২৪ মে) ঈদের আগের দিন কমলগঞ্জের ব্যস্ততম জনপদ শমশেরনগর বাজার চৌমুহনায় সড়ক অবরোধ করে পরিবহন শ্রমিক ও চালকরা বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেছে।

[৩] রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় মৌলভীবাজার জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউুনিয়নের অন্তর্ভূক্ত শমশেরনগর আঞ্চলিক শাখার সহ সভাপতি নুরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দীনের নেতৃত্বে প্রায় দেড় শতাধিক চালক ও শ্রমিকরা শমশেরনগর চৌমুহনায় অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেছে। এসময় চার দিকের সড়কে আটকা পড়েছিল প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ধরণের যানবাহন। সাথে সাথে ঈদের শেষ বাজার হিসেবে আসা ক্রেতারাও চরম দুর্ভোগের মাঝে পড়েছিলেন। প্রায় ঘন্টা খানেক বিক্ষোভ চলাকালে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. জুয়েল আহমদ ও শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) অরুপ কুমার চৌধুরী এসে বিক্ষোভকারী পরিবহন শ্রমিকদের সাথে আলোচনা করে এ বিষয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক ও জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে বিক্ষোভকারী পরিবহন শ্রমিকদের খাদ্য সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দিলে বিক্ষোভকারীরা সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করে।

[৪] শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) অরুপ কুমার চৌধুরী পরিবহন শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শণের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শমশেরনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ এসে এ বিষয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হকের সাথে কথা বলেন। তাছাড়া মৌলভীবাজার জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ফজলুল হকের সাথে কথা বলেন। নির্বাহী কর্মকর্তা ও জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতির সাথে আলোচনা করে আজকের ভিতরে তাদের খাদ্য সহায়তার আশ্বাস দিলে পরিবহন শ্রমিকদের বিক্ষোভ প্রদর্শণ প্রত্যাহার হয়েছে।

[৫] এ বিষয়ে আলাপকালে মৌলভীবাজার জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ফজলুল হক বলেন, আমরা ইতিমধ্যে সরকারিভাবে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রায় দুইশত ও আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকেও পরিবহন শ্রমিক ও চালকদের কিছু খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছি। তাছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে ত্রাণ সহায়তার দাবীতে আবেদনও করা হয়েছে।

[৬] কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশেকুল হক জানান, ইতিমধ্যে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুইশত পরিবহন চালক ও শ্রমিকদের ত্রাণ সহায়তা এবং স্থানীয় সংসদ সদস্যও দুইশত সিএনজি অটোরিক্সা চালককে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে কর্মহীন চালক ও শ্রমিকদের সহায়তা করা হবে।

[৭] মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন বলেন, বিষয়টি আমি দেখতেছি। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত