প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সৌদি আরবে যেভাবে করোনায় মৃত ব্যক্তির কাফন-দাফন করা হয়

ইসমাঈল আযহার: [২] সৌদি আরবে করোনাভাইরাসে মৃত ব্যক্তিদের কবর দেওয়ার জন্য প্রাদেশিক ও জেলা পর্যায়ে কবরস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দেশটিতে করোনায় মৃত ব্যক্তিদের প্রথমে গোসল দেওয়া হয়। গোসল করানো জন্য একদল মানুষকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে যাতে তারা নিজেদের সুরক্ষা বজায় রেখে গোসল দিতে পারে। পুরো প্রতিক্রিয়াটি সৌদির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে করা হচ্ছে।

[৩] করোনায় মৃতদের পরিবারের সদস্যরা মৃতকে গোসল দিতে পারবে না এবং শেষবারের মতো দেখতেও পারবে না। মহামারী বিস্তার প্রতিরোধে সতর্কতামূলক পদক্ষেপের অংশ হিসেবে এই আইন করা হয়েছে। জেদ্দা সচিবালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ আল-বাকামি জানিয়েছেন, করোনারভাইরাসে মৃত ব্যক্তিদের গোসল করোনা দুই ব্যক্তির একসঙ্গে মিলিত হওয়া ও শোকসভা করাও নিষিদ্ধ।

[৪] আল-বাকামি বলেছিলেন, ভাইরাসটিতে মারা যাওয়া প্রত্যেক ব্যক্তির জানাজা ও দাফন কাজে মাত্র ১০ জন ব্যক্তি অংশ নিতে পারে। কাফন-দাফনের সময় সতর্কতামূলক ব্যবস্থাসহ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হয়। তিনি জানান, জেদ্দার জাবহান কবরস্থানটি নির্দিষ্ট করা হয়েছে যেখানে ভাইরাসটিতে মৃতদের কবর দেওয়া হচ্ছে।

[৫] তিনি আরও বলেন, নিহতদের জানাজার জন্য নির্দিষ্ট মসজিদের ইমামদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যোগাযোগ রয়েছে। যাতে করে ইমামদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা যায় অথবা সুরক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে তাদের অবগত করা যায়।

[৬] আল-বাকামি জানান, মৃত ব্যক্তির পরিবারের যদি হাসপাতালে গোসল করাতে আপত্তি থাকে তাহলে নির্ধারিত মর্গে তারা গোসল করাতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে স্বাস্থ্য সুরক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ, ব্যক্তিগত সুরক্ষার জন্য মেডিকেল মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস এবং এপ্রোন অবশ্যই পরিধান করতে হবে। গোসল শেষে দেহটি একটি ব্যাগে রাখা হবে যাতে গোসল করানো ব্যক্তির শরীরের পানি বেরিয়ে আসতে পারে। অতপর খুব বেশি প্রয়োজন হলেই কেবল লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়।

[৭] জেদ্দা সচিবালয়ের একজন সরকারী মুখপাত্র বলছিলেন, জানাজার সময় পারফর্মারদের অবশ্যই ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম ব্যবহার করতে হবে এবং জানাজার পর সাবান-পানি দিয়ে কমপক্ষে ৪০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুয়ে নিতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত