প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনা মোকাবেলায় ৩ হাজার ১শ’ কোটি রূপি বরাদ্দ করলেন নরেন্দ্র মোদী

সালেহ্ বিপ্লব : [৩] বুধবার ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর নাগরিক তহবিল ও ত্রাণ ফান্ড থেকে এই বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে ২ হাজার কোটি রূপি খরচ করা হবে ভেন্টিলেটর কেনার জন্য। ১ হাজার কোটি রূপি ধরা হয়েছে বিভিন্ন রাজ্যে কর্মরত ভ্রাম্যমান শ্রমিকদের জন্য। আর ১শ’ কোটি রুপি ভ্যাকসিন উৎপাদনে সহায়তা দিতে খরচ হবে। এনডিটিভি, ইন্ডিয়াডটকম, টাইমস অব ইন্ডিয়া, এই সময়

[৪] মঙ্গলবার ‘আত্মনির্ভর ভারত’ নামে ২০ লাখ কোটি রূপির কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন মোদী। এতে স্বদেশি পণ্যকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়ার নীতি গ্রহণ করে মোদী সরকার। করোনা মোকাবেলায় ঘোষিত ৩১০০ কোটি রূপি খরচ করা হবে সেই নীতি মেনেই।

[২] বিদেশ থেকে না এনে ৫০ হাজার ভেন্টিলেটর নিজেরাই তৈরি করবে ভারত। এগুলো সরকার পরিচালিত কোভিড হাসপাতালগুলোতে সরবরাহ করা হবে।

[৪] লকডাউনের কারণে বিভিন্ন রাজ্যে আটকা পড়েছেন অন্যান্য রাজ্য থেকে আসা ভ্রাম্যমান শ্রমিকরা। তাদের খাওয়া-পরা, চিকিৎসা ও বাড়ি ফেরার খরচ বহন করা হবে প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকে বরাদ্দ ওই টাকা থেকে। এই টাকা রাজ্য সরকারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বা পৌর কমিশনারদের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে।

[৫] ভ্যাকসিন বাবদ বরাদ্দ টাকা দেয়া হবে বিজ্ঞানী ও বিভিন্ন ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে। তারা ভারতের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে ভ্যাকসিন উদ্ভাবনে কাজ করবেন।

[৬] প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নাগরিক তহবিল নামে যে ফান্ড গঠন করেছেন, তাকে পিএম কেয়ারস নামে অভিহিত করা হয়েছে। এই ফান্ডের উদ্দেশ্য করোনার মতো দুর্যোগ মোকাবেলা, এতে নাগরিকদের অনুদান দেয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত