প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফটিকছড়িতে হতদরিদ্র মাহবুবের পাশে শিল্পপতি বিপ্লব

ওমর ফয়সাল : [২] চট্টগ্রামের ফটিকটিছড়ি উপজেলার দাঁতমারা ইউনিয়নের প‚র্ব দাঁতমারা এলাকার বাসিন্দা হতদরিদ্র-দিনমজুর মাহবুব আলম। স্ত্রী ও ৩ সন্তান মিলে পাঁচজনের পরিবার। কাজ করলে ঘরে চুলা জ্বলে, নয়তো জ্বলে না। ২ শতক জমির উপর একটি ছনের ছাউনির মাটির ঘরে বসবাস করে আসছে। অর্থের অভাবে ঘরটি মেরামত করতে না পারায় সেটিও বসবাস অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন বিভিন্নজনের কাছে ধর্না দিয়েও জুটেনি কোন সহযোগীতা। সর্বশেষ সিদ্ধান্ত নেন কোন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে ঘরটি মেরামত করবেন; সেখানেও বাঁধ সাধে নিয়তি। মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সারাদেশে অঘোষিত লকডাউন শুরু হলে বন্ধ হয়ে যায় সকল এনজিও’র কার্যক্রম। ফলে অনিশ্চয়তায় পড়ে মাহবুব।

[৩] একদিকে ভাঙ্গা ঘর মেরামতের চিন্তা, অন্যদিকে কর্মহীন হয়ে সংসার চালিয়ে যাওয়া দুষ্কর হয়ে পড়ে তার। গত দুদিনের টানা বৃষ্টিতে স্ত্রী, সন্তান নিয়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করে মাহবুব। এমতাবস্থায় কয়েকদিন আগে ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু ইউসুফ হতদরিদ্র মাহবুবের দুর্দশার কথা স্থানীয় সাংবাদিক কামাল উদ্দিনকে জানান। সাংবাদিক কামাল মাহবুবের জরাজীর্ণ বসতঘরের ছবি এলাকার কৃতি সন্তান ও জেএইচএম ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের ডেপুটি ব্যবস্থাপনা পরিচালক, শিল্পপতি মেহেদি হাসান বিপ্লবকে পাঠান। মাহবুবের বসতঘরের করুণ চিত্র দেখে শিল্পপতি বিপ্লব দ্রæত ঘরটি পরিদর্শনপ‚র্বক একটি প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ প্রদান করেন।

[৪] এর প্রেক্ষিতে আজ বুধবার (২৯ এপ্রিল) অসহায় মাহবুবের ঘরটি পরিদর্শনে যান দাঁতমারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মজিবুল হক মজুমদার, সহ-সভাপতি নুরুল আলম বিএ, সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন, সাংবাদিক কামাল উদ্দিনসহ এলাকার কয়েকজন। এ সময় তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক ফোন করে শিল্পপতি মেহেদি হাসান বিপ্লব হতদরিদ্র মাহবুবের ঘরটি টিনের ছাউনি দ্বারা পুনঃনির্মাণের জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সাংবাদিক কামালকে দায়িত্ব প্রদান করেন। পরে মাহবুবের হাতে তার পরিবারের জন্য শিল্পপতি বিপ্লবের পক্ষ থেকে মাহে রমজানের উপহার চাউল,আলুসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী তুলে দেন তারা।

[৫] শিল্পপতি মেহেদী হাসান বিপ্লবের এমন মহানুভবতায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে হতদরিদ্র মাহবুব আলম বলেন, দীর্ঘদিন জরাজীর্ণ এ ঘরে স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। নানা চেষ্টা করেও অর্থাভাবে মেরামত করতে সক্ষম হয়নি। অবশেষে বিপ্লব সাহেব আমার ঘরটি মেরামতে এগিয়ে এসেছেন। আমি ও আমার পরিবার তাঁর এ সহযোগীতার কথা আজীবন মনে রাখবো। আল্লাহ বিপ্লব সাহেবকে আরো বড় করুক, যেন সব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত