প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছুটি বলায় রাজধানী ফাঁকা করে হাজার হাজার মানুষ গ্রামে ছুটছে,ছুটির মুডে গ্রামে যাওয়া মানুষ পাড়া বেড়াবে, আড্ডা চলবে

 

সাইফুদ্দিন আহমেদ নান্নু: ছুটি আর লকডাউন শব্দ দুটির ফাংশন তার প্র্যাকটিক্যাল এবং সাইকোলজিক্যাল পার্থক্য বুঝলাম না আমরা। প্রয়োজনীয়তাও উপলব্ধি করলাম না। ছুটি বলায় রাজধানী ফাঁকা করে হাজার হাজার মানুষ গ্রামে ছুটছে। ছুটির মুডে গ্রামে যাওয়া মানুষ পাড়া বেড়াবে, আড্ডা চলবে, জটলা হবে, আনন্দও হবে। শহরে তবু পুলিশ আছে আর্মি নামবে, মানুষকে ঘরে ঢুকিয়ে দেবে কিন্তু গ্রামে এটা কে করবে। কে জানে এই শহর ছেড়ে গ্রামে যাওয়া মানুষেরা সবাই সুস্থ কিনা। তাদের মধ্যে কতোজন করোনার সুপ্তাবস্থা নিয়ে গ্রামে গেলেন আমরা কেউ জানি না। লকডাউন করে দশটা দিন ঘরে আটকে রাখলে খুব বেশি, খুব বড় ক্ষতি হতো না।

গ্রামের মানুষ করোনাকে শহুরে রোগ বলেই ভাবে, তারা ভাবেইনি এই রোগ গ্রামের পর গ্রামও উজাড় করতে পারে। কারণ করোনার যতো ছবি তারা টিভিতে দেখেছে তাতে কোনো আক্রান্ত গ্রাম তারা দেখেনি। শহরই দেখেছে। গ্রাম আক্রান্ত হলে বাংলাদেশ দাঁড়াতে পারবে না। আসন্ন ভয়ংকর অর্থনৈতিক বিশ্বমন্দারকালে বাংলাদেশকে বাঁচাতে পারবে কেবল গ্রাম, তার কৃষক, কৃষি। রেমিটেন্সও নয়, গার্মেন্টও নয়। ফেসবুক থেকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত