প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]করোনাভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে জনসমাগম স্থলে লিফলেট বিতরণ করছে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী

সুজন কৈরী : [২] বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী দেশের সর্ববৃহৎ শৃঙ্খলা বাহিনী। তৃণমূল পর্যন্ত বিস্তৃত এ বাহিনীতে প্রায় ৬১ লাখ সদস্য রয়েছে। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করায় সমগ্র বিশ্বের মতো বাংলাদেশের জনগণের মধ্যেও আতংক ও ভীতির সঞ্চার হয়েছে। এ ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদের নির্দেশে সদর দপ্তরসহ বাহিনীর সকল রেঞ্জ, জেলা এবং ব্যাটালিয়ন ইউনিট পর্যায়ের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সদস্য সমগ্র দেশের জনগণকে করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষার্থে বিভিন্ন কার্যকরি পদক্ষেপ ও কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

[৩] বিশাল এ বাহিনীর কমান্ড চ্যানেলকে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নির্দেশনা মোতাবেক জনসচেতনতামূলক লিফলেট প্রস্তুতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তৃণমূল পর্যায়ে প্রত্যেক ইউনিয়ন/ওয়ার্ড দলনেতা/দলনেত্রী ও সদস্য কমপক্ষে ১০০টি প্রস্তুতকৃত লিফলেট সারাদেশের রেল স্টেশন, বাস স্ট্যান্ড, হাট-বাজারসহ জনসমাগম স্থলে স্থানীয়ভাবে বিতরণ করছে। লিফলেটে করোনা ভাইরাস কিভাবে ছড়ায়, ভাইরাসের লক্ষণ, রোগের প্রতিকার ও প্রতিরোধে করণীয় এবং হাত কখন কখন ধূতে হবে ও কিভাবে ধূতে হবে এসব বিষয়ে তুলে ধরা হয়েছে।

[৪] এছাড়া বাহিনীর সদস্যরা জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট রোগীদের কমপক্ষে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন বা হোম কোয়ারেন্টাইনে থেকে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে। করোনার সতর্কতার অংশ হিসেবে ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে জনগণকে আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে। বাহিনীর সদস্যরা জনগণকে প্রচুর পরিমানে পানি পান করা, প্রচুর পরিমাণে শাক-সবজি ও ফলমূল খাওয়া এবং মাস্ক ব্যবহার করার পরামর্শ দিচ্ছেন। এছাড়া তারা জনসমাগম স্থলে সকলকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধোয়ার বিষয়ে অনুপ্রাণিত করছেন এবং সকলকে বেশি বেশি করে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান, হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে হাত ধোয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন।

[৫] জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে সারাদেশে বাহিনীর জেলা, উপজেলা ও ব্যাটালিয়ন ইউনিট কার্যালয়সহ প্রতিটি কার্যালয়ের সামনে জনসাধারণ ও নিজেদের জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান, হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে হাত ধোয়ার সরঞ্জামাদিসহ বেসিন স্থাপন এবং পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধের অংশ হিসেবে বাহিনীর সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সদস্য-সদস্যাদেরকে ফুল হাতা শার্ট পরার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে এবং স্থানীয়ভাবে সদস্য-সদস্যারা জনগণকেও করোনা ভাইরাসের সংক্রামক থেকে রক্ষার লক্ষ্যে ফুল হাতা শার্ট পরার পরামর্শ দিচ্ছে।

[৭] বিদেশ থেকে আগত সকল প্রবাসীদের তালিকা অনুযায়ী জেলা কমান্ড্যান্টকে তার অধঃস্তন চেইন অব কমান্ডের মাধ্যমে সরকার নির্দেশিত হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই বাহিনীর তৃণমূল পর্যায়ের সদস্যগণ সরকারি তালিকা অনুযায়ী ঐ সকল প্রবাসীদের প্রত্যেকের বাড়ীর উপর নজরদারী করা শুরু করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত