প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কুড়িগ্রামে সাংবাদিকের কারাদণ্ড: তদন্ত শুরু করেছে রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়

আনিস তপন: [২] এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের দায়িত্বে নিয়োজিত অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) ও পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) স্থানীয় সরকার, মো. জাকির হোসেন জানান, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) আবু তাহের মো. মাসুদ রানা এই মূহুর্তে (বেলা ৫.১৪ মি.) ঘটনা স্থলে রয়েছেন এবং তদন্ত করে দেখছেন। তদন্ত শেষে আশা করছি আগামীকাল রোববারের মধ্যে তা প্রতিবেদন আকারে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠিয়ে দিতে পারব।

[৩] গত বছরের ১৯ মে ‘কাবিখা’র টাকায় পুকুর সংস্কার করে ডিসি’র নামে নামকরণ!’ শিরোনামে বাংলা ট্রিবিউনে একটি প্রতিবেদন করেন সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম রিগান। প্রতিবেদনে বলা হয়, শহরের একটি সরকারি পুকুর সংস্কারের পর জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন নিজের নামানুসারে ‘সুলতানা সরোবর’ নামকরণ করতে চেয়েছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত সেই নামকরণ আর করা হয়নি।

[৪] মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনা জানানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলেও এসময় জানান বিভাগীয় কমিশনারের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা এই কর্মকর্তা।

[৫] অপর এক প্রশ্নের জবাবে জাকির হোসেন জানান, ঘটনার বিষয়ে আমরা যা শুনেছি, তদন্তে যদি কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায় তবে সেই অনুযায়ী মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে জানিয়ে দেয়া হবে। প্রতিবেদনের সুপারিশে বলে দেয়া হবে যে, এই কর্মকর্তা বা এই ব্যক্তিকে দোষী বলে মনে হয়েছে অথবা এই কর্মকর্তা বা এই ব্যক্তির বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। মোট কথা তদন্তে যার বিরুদ্ধেই কোনো প্রমাণ পাওয়া যাবে প্রতিবেদনে হুবহু সেই কথাই জানিয়ে দেয়া হবে।

[৬] এর আগে মধ্যরাতে মাদকবিরোধী টাস্কফোর্সের অভিযানে বাংলা ট্রিবিউন-এর কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি আরিফুল ইসলামকে এক বছর কারাদণ্ড দেয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে তদন্তের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

[৭] এ প্রসঙ্গে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানান, কোনোভাবেই মধ্যরাতে টাস্কফোর্সের অভিযান আইনসম্মত নয়। অবশ্যই টাস্কফোর্সকে সকাল না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে, তাই বিধান রয়েছে। মধ্যরাতে অভিযান ও সাজা দেওয়ার বিষয়টি প্রশাসনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে। এ ধরনের কর্মকাণ্ড মাঠপর্যায়ে সরকার ও প্রশাসনের ওপর জনগণের আস্থা কমায় এবং পরিস্থিতি বিরূপ করে তোলে। একারণে বিব্রত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

[৮] রিগ্যানকে শুক্রবার (১৩ মার্চ) গভীর রাতে বাসার গেট ও ঘরের দরজা ভেঙে ঢুকে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চোখ বেঁধে বিবস্ত্র করে নির্যাতন করা হয়েছে। সে নির্যাতনের ঘটনার পুরো দৃশ্য ভিডিও করে একজন। শনিবার (১৪ মার্চ) কুড়িগ্রাম কারাগারে আটক আরিফের সঙ্গে দেখা করতে গেলে স্ত্রী মোস্তারিমা সরদার নিতুর কাছে এসব অভিযোগ করেছেন তিনি (আরিফ)। এসময় রাতের ঘটনায় নেতৃত্ব দানকারী কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের আরডিসি (সিনিয়র সহকারী কমিশনার-রাজস্ব) নাজিম উদ্দিনকে চিনে ফেলেন নিতু। তিনি সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন, আরডিসি নাজিম উদ্দিনই তার বাসায় হামলার নেতৃত্ব দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার মধ্যরাতে রাতে বাড়িতে হানা দিয়ে বাংলা ট্রিবিউন-এর কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি আরিফুল ইসলামকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন জেলা প্রশাসনের মোবাইল কোর্ট। তাকে কুড়িগ্রাম জেলা কারাগারে রাখা হয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত